গ্লাসের পানিতেই গাছ

অর্থসূচক ডেস্ক

0
703
Agrodolce

আধুনিক ব্যস্ত জীবনে প্রকৃতির কাছে যাওয়ার মতো সময় আমাদের কাছে নেই। কিন্তু যান্ত্রিক জীবনে একটু প্রকৃতির ছোঁয়া পেতে বারান্দা বা ঘরের ভেতরে নানান ধরনের গাছ রাখেন প্রকৃতিপ্রেমীরা। সামান্য সবুজের ছোঁয়াতেই প্রশান্তির সন্ধান করি আমরা।

ঘরের ভেতর রাখা এই গাছ আমাদের ঘরের সৌন্দর্য বাড়ায়; একইসঙ্গে ঘরের তাপমাত্রা সহনশীল রাখতে সাহায্য করে। সাধারণত ঘরের বা বারান্দায় নানা ধরনের পাতা বাহার গাছ রাখতে দেখা যায়। এর সঙ্গে ভেষজ উদ্ভিদ ও সবজির গাছ রাখা খুব কষ্টের কিছু নয়। মাত্র ১ গ্লাস পানিতেই জন্মানো যায় এমন কিছু গাছ। এসব গাছের পরিচর্চায় খুব বেশি সময়ও ব্যয় করতে হয় না।

১। লেটুস পাতা:

লেটুস পাতার নিচের দিক থেকে ১ ইঞ্চি পরিমাণ পাতা কেটে নিন। এরপর অগভীর থালায় আধা ইঞ্চি পরিমাণ পানিতে কাণ্ডটি দিয়ে জানলার পাশে অথবা লাইটের নিচে বা পছন্দমতো জায়গায় সেটি রাখুন। ২ দিন অন্তর পাত্রের পানি পরিবর্তন করে দিন। আর সপ্তাহে কমপক্ষে ১ দিন রোদে দিন।

২। তুলসি:

তুলসির স্বাস্থ্য উপকারিতার কথা সবারই জানা। এটি আমাদের হৃদপিণ্ডকে সুস্থ রাখে। এর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুনাগুণও আছে; যা ভাইরাস ও সংক্রমণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। ভেষজ উদ্ভিদটি পানিতে জন্মানোর জন্য প্রয়োজন হবে পাতার ঠিক নিচের ৪ ইঞ্চি তুলসির কাণ্ড। ফুল আসেনি তুলসির এমন ডাল থেকে পাতাসহ কাণ্ড কেটে নিতে হবে। কাণ্ডের নিচের দিক থেকে ২ ইঞ্চি পর্যন্ত পাতা সরিয়ে ফেলুন।

পানি ভর্তি একটি জারে এই ডালটি দিয়ে এমন স্থানে রাখুন যেখানে সূর্যের আলো পাওয়া যায়; কয়েকদিন পর পর এই পানি পরিবর্তন করুন। যখন এর মূল ২ ইঞ্চির চেয়ে বড় হলে এটি মাটিতে বা টবেও লাগাতে পারেন।

৩। অরিগেনো:

নানান ধরনের ফাস্টফুড আর পিজ্জায় ব্যবহৃত হয় এই অরিগেনো। এই ভেষজ উদ্ভিদটি পানিতে জন্মানো খুব সহজ। এর জন্মানোর জন্য আদর্শ তাপমাত্রা হচ্ছে ৬৫-৭০ ডিগ্রি ফারেনহাইট; এর জন্য দিনের বেলায় পর্যাপ্ত সূর্যের আলো প্রয়োজন। তাই ঘরের এমন জায়গায় এর পাত্রটি রাখুন, যেখানে প্রতিদিন সূর্যের আলো পৌঁছায়।

৪। পুদিনা:

পুদিনা পাতার পুষ্টিগুণ সবারই জানা। প্রায় প্রতিদিনই অল্প অল্প করে এই পাতা কেনেন এমন মানুষের সংখ্যা কম নয়। কিন্তু নিয়মিত না কিনে ঘরের মধ্যেই এর কয়েকটি ডাল রেখে অঙ্কুরোদগম করা সম্ভব। পুদিনার কাণ্ড কেটে পানিভর্তি জারের মধ্যে রাখুন; জারটি এমন স্থানে রাখুন যেখানে পর্যাপ্ত সূর্যের আলো পাওয়া যায়। গরমের সময় কয়েকদিনের মধ্যেই মূল বের হবে। আর শীতের কাণ্ড বের হতে ২ সপ্তাহ সময় লাগতে পারে।

৫। রোজমেরি:

রোজমেরির ডাল ৬ ইঞ্চি পর্যন্ত নিয়ে এর নিচের অংশের পাতাগুলো সরিয়ে দিন। তারপর এই ডালগুলো জারের পানির মধ্যে রেখে দিন। ২ সপ্তাহের মধ্যেই মূল বের হবে। এরপর বাগানে বা অন্য কোনো পাত্রের মাটিতে রোপন করতে পারবেন রোজমেরি।

৬। ধনে পাতা:

আমাদের দৈনন্দিন রান্নার আরেকটি জনপ্রিয় ভেষজ উপাদান হলো ধনে পাতা। খুব সহজেই ঘরে জন্মাতে পারেন এটি। এর পাতার কাণ্ডের নিচের অংশ পানিতে দিতে হবে। জারটি ঘরের স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রেখে দিন। পানির রঙ পরিবর্তিত হয়েছে দেখলেই তা পাল্টে দিতে হবে।

অর্থসূচক/টি এম/এমই/