টানা চাঙ্গা ভারতের পুঁজিবাজার

অর্থসূচক ডেস্ক

0
54
ছবিটি প্রতীকী

সদ্য চালু হওয়া ভারতীয় ‘ভ্যাট’ গুডস অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্যাক্স- জিএসটির ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে দেশটির পুঁজিবাজারে। গত কয়েকদিন ধরে এ ধারা অব্যাহত আছে।

আজ বুধবারও ভারতের স্টক বেঞ্চমার্ক ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় শেষ হয়েছে।

গত কার্যদিবসের চেয়ে এদিন বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে সেনসেক্স সূচক বেড়েছে দশমিক ১ শতাংশ। বেড়েছে নিফটি সূচকও।

ছবিটি প্রতীকী

৩০ জুন শুক্রবার মধ্যরাতের পর সরকার ৪ ভিত্তিহারের এই কর ব্যবস্থা চালু করে।

নতুন এই কর ব্যবস্থায় এখন থেকে পণ্য ও পরিষেবায় ৫ শতাংশ, ১২ শতাংশ, ১৮ শতাংশ এবং ২৮ শতাংশ ভ্যাট পরিশোধ করতে হবে।

ভারতীয় মিডিয়ায় দাবি করা হয়েছে, জিএসটিতে রাজস্ব বৃদ্ধি, পণ্যের দামের সরলীকরণ হবে। আগামীতে সার্বিক কর নীতি প্রয়োগও আরও সহজ হবে। জিডিপি বৃদ্ধি হতে পারে ১.৫ শতাংশ হারে।

তবে ১৮ ও ২৮ শতাংশ কর নিয়ে বিতর্ক আছে।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, শুক্রবার মধ্যরাতের পরই বাজারে জিএসটি শঙ্কা কেটেছে। এর আগের সপ্তাহে এ নিয়ে শঙ্কায় ছিল বিনিয়োগকারীরা। জিএসটি চালুর পর দেড়শো’র মতো কোম্পানি রেকর্ড লেনদেন করেছে। কোম্পানিগুলোর শেয়ারদর সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে; যা পুঁজিবাজারের জন্য ইতিবাচক।

বোঝাই যাচ্ছে বাজারে বিনিয়োগকারীদের আস্থা এই মুহূর্তে তুঙ্গে। তবে বিশ্লেষকরা বাজারে সংশোধনের দরকার আছে বলে মনে করেন।

কোটাক মাহিন্দ্র ওল্ড মিউচুয়াল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রধান হেমন্ত কানাওয়ালা মনে করেন, বাজার সংশোধন না হলে সেটিই বিনিয়োগের জন্য বড় ঝুঁকি হয়ে দাঁড়াবে। কারণ, জিএসটি বাস্তবায়ন ও মৌসুমী বৃষ্টিপাতে হতাশা তৈরি হলে তা বাজারে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

ভারতের পুঁজিবাজার সূত্রে জানা যায়, আজ বুধবার বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে দর বৃদ্ধিতে ছিল ১ হাজার ৬৪০ কোম্পানি। আর শেয়ারের দরপতনে ছিল ৯৫৭ কোম্পানি।

এস