মান্দারিন হাঁস পাখা মেলে-

অর্থসূচক ডেস্ক

0
279
মে থেকে আগস্ট মান্দারিন হাঁসের প্রজনন ঋতু,সাধারণত একবারে ৯-১২টি ডিম পাড়ে।

‘বুনো হাঁস পাখা মেলে- শাঁই শাঁই শব্দ শুনি তার/এক-দুই-তিন চার-অজস্র-অপার-’ জীবনানন্দ দাশের কবিতায় বুনো হাঁসের সংখ্যা অজস্র অপার হলেও বিভিন্ন কারণে বুনো ও অতিথি হাঁসের সংখ্যা কমে যাচ্ছে ধীরে ধীরে। তেমনি মান্দারিন মূলত চীনা হাঁস হলেও বাংলাদেশের অতিথি পাখির তালিকায় রয়েছে। এর বৈজ্ঞানিক নাম এইক্স গ্যালেরিকুলেটা, এই নামের অর্থ ‘টুপিপড়া ডুবুরি’। চায়না গ্লোবাল টিভি নেটওয়ার্ক সাইটের ফেসবুক পেজ থেকে নেওয়া ছবিগুলো গত সোমবার চীনের হেলিওংজিয়াং প্রদেশের ঝাওলিন পার্ক থেকে তোলা।

মে থেকে আগস্ট মান্দারিন হাঁসের প্রজনন ঋতু, এরা সাধারণত একবারে ৯-১২টি ডিম পাড়ে।
জন্মের ৪০ থেকে ৪৫ দিন পর ছানারা উড়তে শেখে আর নতুন ঝাঁকে যোগ দেয়।
যেসব জলাশয়ের ধারে-কাছে ঘন বন থাকে সেসব জলাশয় মান্দারিন হাঁসেদের পছন্দের জায়গা।
মিঠাপানির আর্দ্রভূমি, প্লাবিত ধানক্ষেত, বনের জলধারা, পুকুর, হ্রদ ও তৃণময় জলাশয়ে বিচরণ করে।
জলজ উদ্ভিদ, শস্যদানা, ছোট মাছ, শামুক, কেঁচো, জলজ পোকামাকড়, চিংড়ি ও কাঁকড়াজাতীয় প্রাণী এমনকি ছোট সাপও এদের খাদ্যতালিকায় রয়েছে।
বাহারি রঙের ছোট জলচর পাখিটির ছেলে ও মেয়েহাঁসের পালকের রঙের বৈচিত্রতায় অনেক পার্থক্য আছে।
এরা ভালো সাঁতারু ও উড়তে পারে, তবে বেশিক্ষণ ডুব দিয়ে থাকতে পারে না।
চীনের হেলিওংজিয়াং প্রদেশের ঝাওলিন পার্কে মান্দারিন ছবি তোলার জন্য অনেক ফটোগ্রাফার ভিড় জমান।

তথ্য সূত্র: উইকিপিডিয়া ও ইন্টারনেট।

অর্থসূচক/ কে এম