বাড়ি ভাড়া বাড়ানোর প্রতিবাদে মানববন্ধন

0
36
home

homeবাড়ি ভাড়া বৃদ্ধি বন্ধ এবং বিদ্যুতের দাম না বাড়ানোর জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ভাড়াটিয়া পরিষদ।

শনিবার বিকেল তিন টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানবন্ধন করে সরকারের কাছে এ আহ্বান জানান তারা।

মানবন্ধনে বক্তারা বলেন, জানুয়ারি মাস থেকে প্রতিটি বাড়ির মালিক প্রতি ফ্ল্যাটে ৫শ টাকা থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ভাড়া বাড়িয়েছেন।

এ সময় সরকারের সমালোচনা করে বক্তারা বলেন, সরকার অযৌক্তিকভাবে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। বাড়ির মালিকের বিদ্যুতবিল ১০ টাকা বাড়লে বিদ্যুতবিলের অজুহাতে ভাড়াটিয়াদের কাছ থেকে ২শ টাকা আদায় করবে। এতে গরীব অসহায় মানুষের কষ্টের মাত্রা বেড়ে যাবে।

তারা বলেন, ঢাকা শহরে বসবাসকারী পরিবারগুলোর অধিকাংশই হল মধ্যবিত্ত এবং নিম্নবিত্তের। প্রতিবছর কোনো নিয়মনীতি ছাড়াই মালিকরা ভাড়া বাড়িয়ে ভাড়াটিয়াদের ওপর নির্যাতন চালাচ্ছে। এসব নির্যাতন বন্ধে সরকারকে এখনই কার্যকরী ভূমিকা নিতে হবে।

মানববন্ধনে বক্তারা বাড়িভাড়া নিয়ন্ত্রণ আইন-১৯৯১ প্রয়োজনীয়, সংস্কারসহ আইনটি বাস্তবায়ন করতে হবে। এবং যে সকল বাড়ির মালিক আইন অমান্য করে ভাড়া বাড়ায় তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী আইনে বিচার করতে হবে।

এছাড়া ভাড়াটিয়াদের কাছ থেকে এক মাসের বেশি অগ্রিম ভাড়া নেওয়া বন্ধের দাবিও জানান তারা।

তারা বলেন, সরকার তার নির্বাচনি প্রতিশ্রুতি পালনে ব্যর্থ হয়েছে। সরকার জনগণকে ধোকা দিয়েছে। তাই সরকার ‍যদি শিগগিরই বিদ্যুতের দাম না কমায় এবং ভাড়া বাড়ানো বন্ধ না করে তাহলে জনগণ রাস্তায় নেমে কঠোর আন্দোলন করতে বাধ্য হবে।

বক্তারা বলেন, শহরে বাড়ির মালিক মাত্র ৫ শতাংশ। অথচ এই ক্ষুদ্র জনশক্তির কথাই শোনে সরকার। মাত্র ৫ শতাংশ লোভী মানুষের কারণে ৯৫ শতাংশ অসহায়-গরীব মানুষ জীম্মি। সেদিকে সরকারের কোনো খেয়াল নেই।

এ সময় ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে আগামি ৪ এপ্রিল ফ্যান্টাসি কিংডম এবং আশুলিয়ায় মানবন্ধন করা হবে বলে জানান তারা।

সংগঠনের সভাপতি মো. বাহারানে সুলতান বাহারের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জান্নাত ফাতেমা, অন্তর আহমেদ, গণঅধিকার পার্টির সভাপতি হোসেন মোল্লা প্রমুখ।

জেইউ/সাকি