যুবলীগে কোন্দলের কারণে মিল্কি খুন হয়েছেন: র‌্যাব

0
79
milki

milkiসংগঠনের মধ্যে কোন্দলের জের ধরে যুবলীগ নেতা মিল্কি খুন হয়েছেন বলে জানিয়েছেন ‌র‌্যাব। এই হত্যায় ১১ জন জড়িত ছিল বলে র‌্যাবের তদন্তে প্রমাণ মিলেছে। এদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র চূড়ান্তও করেছে তদন্তের দায়িত্বে থাকা বাহিনীটি।

এর আগে গত বছরের ৩১ জুলাই মধ্য রাতে ঈদের কেনায়কাটা করে ফেরার সময় খুনিরা যুবলীগ নেতা রিয়াজুল হক খান মিল্কিকে হত্যার পর মটর সাইকেল করে পালিয়ে যায়।

ঘটনার পরই আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ভিডিও ফুটেজসহ নানা বিষয় বিবেচনায় খুনিদের সম্পর্কে ধারণা পায়। গ্রেপ্তার হয় মিল্কির বন্ধু ও যুবলীগের একই ইউনিটের নেতা জাহিদ সিদ্দিকী তারেক। তবে, এর ৪৫ ঘণ্টার মধ্যে সহযোগীসহ বন্দুকযুদ্ধে মারা যান তারেক।

ঘটনার পরপরই তারেক-চঞ্চলসহ ১১ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও বেশ কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন মিল্কির ভাই।

তারেক ছাড়াও হত্যার সময় আশপাশে ছিলেন চঞ্চল, হাবিব চন্নু, আরিফসহ ছয় জন। বাসা থেকে ডেকে আনাসহ জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় আসামির তালিকায় থাকছে যুবলীগ নেতা রফিক, সাগরের স্ত্রী লোপসহ আরও পাঁচ জন।