সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক কমেছে ১১ শতাংশ

0
87
লেনদেন কমেছে

DSE_Suchakডিএসইতে সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক কমেছে ১১ দশমিক ১৫ শতাংশ। গেল সপ্তাহে লেনদেনের পরিমাণও কমেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই)। লেনদেন কমেছে ২৫৭ কোটি ৫৩ লাখ ৩৭ হাজার ৪৮৩ টাকা। পুরো সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসের চার কার্যদিবসই কমেছে সূচক। মাত্র এক কার্যদিবস বেড়েছে সূচক।

ডিএসইতে গত সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৫২ কোটি ৭৩ লাখ ৫৯ হাজার ৭৭ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৩১০ কোটি ২৬ লাখ ৯৬ হাজার ৫৬০ টাকা। এর মধ্যে ‘এ’ ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ৮৮ দশমিক ৫৫ শতাংশ, ‘বি’ ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ২ দশমিক ৬৭ শতাংশ, ‘এন’ ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ১ দশমিক ৩৬ শতাংশ এবং জেড ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ৭ দশমিক ৪২ শতাংশ। এছাড়া ‘জি’ ক্যাটাগরির কোন কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়নি।

সপ্তাহজুড়ে প্রতিদিন গড় লেনদেন কমেছে ১১ দশমিক ১৫ শতাংশ। আর মূল্য আয় অনুপাত বা পিই রেশিও কমেছে ১ দশমিক ০৬ শতাংশ।

ডিএসইর তিন সূচকের মধ্যে কমেছে দুই সূচক। বেড়েছে শুধুমাত্র শরীয়াহ সূচক বা ডিএসইএস সূচক। এই সূচক বেড়েছে দশমিক ২৭ শতাংশ বা ২ দশমিক ৭৫ পয়েন্ট। এই সূচক সপ্তাহের প্রথম দিনে ছিল ১ হাজার ১১ পয়েন্টে। আর শেষে দাঁড়ায় ১ হাজার ১৪ পয়েন্টে।

ডিএসইএক্স বা প্রধান সূচক কমেছে ১ দশমিক ৩৭ শতাংশ বা ৬৪ দশমিক ২৯ পয়েন্ট। সপ্তাহের প্রথম দিনে এই সূচকের অবস্থান ছিল ৪ হাজার ৬৯৯ পয়েন্টে আর শেষ দিন দাঁড়ায় ৪ হাজার ৬৩৫ পয়েন্টে। অপর সূচক ডিএস৩০ কমেছে ১ দশমিক ২১ শতাংশ বা ২০ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট। এই সূচক প্রথম দিনে ছিল ১ হাজার ৬৯০ পয়েন্টে আর শেষ দিন হয় ১ হাজার ৬৬৯ পয়েন্টে।

লেনদেন হয়েছে মোট ৩০২টি কোম্পানি এ মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৩টির কমেছে ১৮৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১১টির। লেনদেন হয়নি ৩টি কোম্পানির শেয়ার।

এমআরবি/