নারীদের জন্য অর্থনৈতিক জোন করতে হবে: গভর্নর

0
71
BD Bank

BD Bankনারীদের জন্য আলাদা অর্থনৈতিক জোন করার আহবান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর রূপসী বাংলা হোটেলে ‘নারী উদ্যোক্তা সম্মেলন ও পণ্য প্রদর্শনী-২০১৪’ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

রুপসী বাংলা হোটেলের উইন্টার গার্ডেনে দিনব্যাপি এই নারী উদ্যোক্তা সম্মেলন ও পণ্য প্রদর্শনী ২০১৪ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ সম্মেলনের সার্বিক সহযোগিতা করছে তফসিলভুক্ত বিভিন্ন ব্যাংক, নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান, কেয়ার বাংলাদেশ, জাইকা বাংলাদেশ।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গভর্নর বলেন, নারীরা শুধু গৃহবধূ হয়ে থাকলে দেশের কাঙ্খিত অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব হবে না। এজন্য শ্রম শক্তিতে নারীর অংশগ্রহণ বাড়াতে হবে। নারীর আত্মশক্তিকে জাগিয়ে তুলতে হবে। বিশ্বে গার্মেন্টস ও ক্ষুদ্রঋণ খাতে বাংলাদেশের ব্যাপক সাফল্যের পেছনে রয়েছে নারীদের বিশাল কর্মযজ্ঞ। তারা দেখিয়ে দিয়েছেন, পরিবার, সমাজ ও আর্থিকখাতে নারীদের একটু সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলে প্রতিকূল পরিবেশেও তারা স্বাবলম্বী হওয়ার পথে এগিয়ে যেতে পারেন। আর এ জন্য সরকারের পাশাপাশি জনগণকেও এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, নারী-পুরুষ মিলেই গড়তে হবে সম্ভাবনাময় বাংলাদেশ। আর এজন্য নারী উদ্যোক্তাদের আরও বেশি স্বাবলম্বী করতে আলাদা অর্থনৈতিক জোন করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান তিনি। তাছাড়া নারীদের এগিয়ে যাওয়ার পথে যত আর্থিক সহযোগিতা প্রয়োজন বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে তার ব্যবস্থা করা হবে বলেও তিনি ঘোষণা দেন।

ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফসিসিআই এর সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ বলেন, দেশে বর্তমানে ১০টি নারী চেম্বার আছে। নারদের উন্নয়নের জন্য দেশের প্রতিটি জেলায় নারী চেম্বার তৈরি হোক আমি এটাই আশা করি। দেশের অর্ধেক নারী তাই তাদের ছাড়া দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়। এ কারণে তাদের উন্নয়নে এগিয়ে আসতে হবে। আমাদের দেশের মেয়েরা যে পরিশ্রম আর দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে তা বিশ্বের অনেক দেশের নারীরাই করতে পারে না বলে তিনি মন্তব্য করেন।

অনেক ব্যাংক এসএমই উদ্যোক্তা নারীদের সেবা প্রদানে অনিহা প্রকাশ করে তাদের এ মানসিকতা থেকে বেরিয়ে এসে নারীদের উন্নয়নে কাজ করতে হবে বলে তিনি জানান। আর এ ধারা অব্যহত রাখতে পারলে আগামি ২০২১ সালের মধ্যেই দেশ মধ্যম ও ২০৪০ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হবে বলে তিনি আশা করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাইকা বাংলাদেশের চীফ রিপ্রেজেন্টিটিভ মিকিও হাতাইদা বলেন, বাংলাদেশের নারী উদ্যোক্তারা এগিয়ে যাচ্ছে। তাদের সহযোগিতায় আমরা আছি এবং আগামিতেও সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক নির্মল চন্দ্র ভক্তের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য অধ্যাপক হান্নানা বেগম, ডেপুটি গভর্নর মো. আবুল কাসেম, এসএমই কনসালটেন্ট সুকোমল সিংহ চৌধুরী, এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস বিভাগের মহাব্যবস্থাপক মো. মাছুম পাটোয়ারী, এমসিসিআই এর সভাপতি রোকেয়া আফজাল রহমান, কেয়ার বাংলাদেশের কান্ট্রিডিরেক্টর জেমি তেরজি, এবিবি এর সভাপতি ও এক্সিম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী রেজা ইফতেখার, ডিসিসিআই এর সভাপতি মোহাম্মদ শাহজান খান প্রমুখ। এ সময় অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীরা উপস্থিত ছিলেন।

এসএই/এএস