বিদেশ থেকে প্রধানমন্ত্রী-মন্ত্রী হাওলাত করতে হবে: পঙ্কজ ভট্টাচার্য‌্য

0
71

Pankaj_battchaargoবিদ্যুৎ সমস্যার স্থায়ী সমাধানের জন্য যদি বিদ্যুৎ হাওলাত করতে হয়, তাহলে তো সরকার চালাতে বিদেশ থেকে প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রীদেরও হাওলাত করে আনতে হবে বলে মন্তব্য করলেন ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য‌্য।

মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ইউনাইটেড ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ঐক্য ন্যাপ) আয়োজিত  মানববন্ধনে ‘বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি নয়, সিস্টেমলস বন্ধ কর’ শীর্ষক মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মানববন্ধনে পঙ্কজ ভট্টাচার্য‌্য বলেন, হাওলাতি বিদ্যুৎ (কুইক রেন্টাল) দিয়ে আপদকালিন সমস্যা সমাধান হতে পারে কিন্তু এটা কোনো স্থায়ী সমাধানের পথ নয়। সরকার যদি বিদ্যুতকে বেসরকারি খাতে ছেড়ে দিতে চায় তাহলে বন্দর, মন্ত্রণালয়, সচিবালয় এসব কিছুকেও বেসরকারি খাতে ছেড়ে দেওয়া হোক।

সরকার ৫ বার বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে এখন ৬ষ্ঠবারের মত দাম বাড়ানোর চেষ্টা করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিদ্যুতের দাম বাড়ালে সরকারের লুটেরা শ্রেণীর লোক লাভবান হবে। এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে দেশের কৃষিখাত।

তিনি বলেন, পিরামিডের মতো বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হচ্ছে। এর ফলে পিরামিডের নিচে আছে যারা তারাই ক্ষতিগ্রস্ত হবে। দাম বৃদ্ধি মানে নিরীহ জনগণের উপর এক ধরণের নির‌্যাতন।

এ সময় কুইক রেন্টাল বাদ দিয়ে সরকারকে পানি ও বায়ূ বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাড়ানোর পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, কুইকরেন্টাল চুক্তি বাদ দেওয়া না হলে আগামি ১৬ মার্চের পর গণ আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

মানববন্ধনে অন্যান্য বক্তারা বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি চক্রান্ত বন্ধ, রেন্টাল নামের লুটপাট বন্ধ, বড় বিদ্যুৎ কেন্দ্র রাষ্ট্রীয় মালিকানায় আনা, আবাসিক ও সাধারণ গ্রাহকদের বিদ্যুৎ মূল্যবৃদ্ধি বৈষম্য দূর, পিডিবি ও ডিপিডিসিকে লুটপাট থেকে দূরে রাখা এবং কৃষি ক্ষেত্রে বিদ্যুতের দাম না বাড়ানোর দাবি জানান।

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সংগঠনের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অধ্যক্ষ এমএ মতিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ ভূঁইয়া, অলিজা হাসান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক লাইলা খালেদা প্রমূখ।

জেইউ/