নিজেদের পকেট ভরতেই কুইক রেন্টালের আবিষ্কার: মোশাররফ

0
46

BD_railwayসরকার কুইক কমিশনের মাধ্যমে নিজেদের পকেট ভরতেই ‘কুইক রেন্টাল’ পদ্ধতির আবিস্কার করেছে। সরকারের এই ভুল নীতির কারণেই এখন বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী যুবদল আয়োজিত ‘তারেক রহমান’র ৮ম কারাবন্দি দিবস’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন।

ড. খন্দাকার মোশাররফ হোসেন বলেন, বর্তমানে বিদ্যুতের যে দাম সেটাই দিতে পারছে না মানুষ ও অর্থনীতির ধারক ব্যবসায়ীরা। এর মধ্যে আবার দাম বাড়ানোর পাঁয়তারা চলছে।

সরকার বিনা ভোট নির্বাচিত উল্লেখ করে তিনি বলেন, যারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয় তাদের বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে এর ভার জনগণের উপর চাপানোর কোনো অধিকার  নেই।

বিল বাড়ালে দেশ আরও বিপর্যয়ের মুখে পড়বে মন্তব্য করে তিনি বলেন, বিদ্যুতের দাম বাড়লে অন্যান্য জিনিসেরও দাম বাড়বে। প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে আমরা পিছিয়ে যাবো।

খন্দার মোশাররফ বলেন, প্রথম পর্যায়ের উপজেলা নির্বাচনে সরকারি প্রশাসন ও দলীয় ক্যাডারদের হুমকি ধমকিতেও মানুষ আওয়ামী লীগকে ভোট দেয়নি। এর ফলে তারা ক্রমান্বয়ে সহিংস হয়ে উঠছে।

প্রথম পর্যায়ের নির্বাচনগুলোতে সহিংসতা কম ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রথম পর্যায়ে হেরে যাওয়ার পর সরকারের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। তাই বেপরোয়া হয়ে বিরোধীদলের ওপর নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে।

তারেক রহমানের দেশে ফেরা নিয়ে তিনি বলেন, তারেক রহমান দেশে ফিরলে তাকে আবারও গ্রেপ্তার করা হবে। গোটা দেশ এখন কারাবন্দি। দেশ ও জাতীকে মুক্ত করতে আন্দোলনের বিকল্প নেই।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, এই সরকারের মত অদ্ভূত ও অস্বাভাবিক সরকার পৃথিবীর কোনো দেশে নেই। বাকশাল সরকার ও আওয়ামী সরকারের আচরণে কোনো প্রার্থক্য নেই।

তিনি বলেন, এক এগারোতে যারা বিএনপিকে ধ্বংস করতে চেয়েছিল তারা তারেক রহমানকে হত্যার চেষ্টাও করেছিল কিন্তু ব্যর্থ হয়েছে। এখনও জাতীয়তাবাদী শক্তি ধ্বংস করার জন্য নীল নকশা হচ্ছে। তাই এদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে।

সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ ৫ তারিখের নির্বাচনকে সংবিধান ও নিয়ম রক্ষার নির্বাচন বললেও এখন তারা ৫ বছর ক্ষমতায় থাকতে চায়। কিন্ত ভোটারবিহীন ও প্রার্থীবিহীন নির্বাচন দিয়ে জোর কওে ক্শতায় থাকতে পারবে না। এ দেশের জনগণ বিএনপির সাথে আছে তাই গণতন্ত্র রক্ষায় এদের এখনই রুখতে হবে।

এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, বন্দি শুধু তারেক রহমান নয়, দেশের ১৬ কোটি মানুষ ও গণতন্ত্র এখন কাটাতারে বন্দি।

দলের নেতাকর্মীদেও উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আবেগঘন স্লোগান আর মঞ্চে উঠে টিভির সামনে বক্তব্য দিয়ে তারেক রহমান ও গণতন্ত্রকে মুক্ত করা যাবে না। এর জন্য মাঠে নামতে হবে। আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়তে হবে। প্রয়োজনে তৃণমূল কর্মীদের মত সকলকে শহীদ হওয়ার প্রস্তুতি নিতে হবে।

যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন সিনিয়র সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী প্রমুখ।

জেইউ/