স্বজনদের খারাপ সংবাদের প্রস্তুতি নিতে বলেছে মালয়েশিয়া

0
39

missing-airতিনদিন পরও হারিয়ে যাওয়া বিমানের কোনো খোঁজ না পেয়ে নিঁখোঁজ যাত্রীদের স্বজনদের মাঝে হতাশা বাড়ছে। স্বজনদের এরই মধ্যে জানিয়ে দেয়া হয়েছে সবচেয়ে খারাপ সংবাদের জন্য প্রস্তুতি নিতে। এদিকে চীন সরকার মালয়েশিয়ার প্রতি আরও জোর অনুসন্ধান চালানোর আহ্বান জানিয়েছে। মঙ্গলবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, নিখোঁজ হবার ৭২ ঘণ্টা পরেও জাহাজ এবং বিমান থেকে ধ্বংসাবশেষের কোন চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এমনকি অনুমান ছাড়া নিখোঁজ বিমানের  ধ্বংসাবশেষ সম্পর্কে কোন তথ্য জানাতে পারেনি অনুসন্ধানকারীরা। তাই এটি খুঁজে পাওয়ার আশা কিংবা ফিরে আশার সম্ভাবনা ধীরে ধীরে ফিঁকে হয়ে আসছে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে স্বজনদেরকে খারাপ সংবাদের জন্য পস্তুত থাকতে বলা হয়।

বেইজিং থেকে বিবিসির সংবাদদাতা জানিয়েছেন, নিখোঁজদের স্বজনদের অনেকেই ধৈর্য হারিয়ে ফেলছেন। মালয়েশিয়া এই স্বজনদের কুয়ালালামপুরে নিয়ে যাবার প্রস্তাব দিয়েছে, যাতে তারা আরেও কাছ থেকে উদ্ধারকার্যক্রম সম্পর্কে জানতে পারে।

তবে অপেক্ষারত একজন চীনা নাগরিক গুও কিসান বলছিলেন, তিনি মালয়েশিয়া যাবার কোন কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না। নিখোঁজ বিমানটিতে তার জামাতার ফেরার কথা ছিল। মালয়েশিয়ান কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চুরি করা পাসপোর্ট নিয়ে যে দুজন ব্যক্তি ঐ বিমানে উঠেছিলেন, তাদের একজনকে শনাক্ত করা গেছে। তবে তার পরিচয় তারা প্রকাশ করেননি।

দেশটির এয়ারলাইন্স জানিয়েছে, বিমানটির ২৩৯ জন যাত্রীর ভাগ্যে কি ঘটেছে তা জানতে নয়টি দেশের অনুসন্ধানকারী দল এখন মালাক্কা প্রণালী থেকে শুরু করে দক্ষিণ চীন সমুদ্র পর্যন্ত সাগরের একটি বmissing-airplaneড় অংশে তাদের অনুসন্ধান চালাবে। এ দেশগুলোর ৪০ টি জাহাজ এবং ৩৪ টি বিমান এখন মালয়েশিয়া এবং ভিয়েতনাম সংলগ্ন সমুদ্রে বিমানটির সন্ধান করছে।

উল্লেখ্য, বিমানটি চীনের উদ্দেশ্যে শনিবার স্থানীয় সময় ২টা ৪০ মিনিটে কুয়ালালামপুর থেকে ছেড়ে যায়। কিন্ত ১০টা ৩০ মিনিটে এটি বেইজিং-এ পৌঁছানোর কথা থাকলেও  পৌঁছায়নি। ভিয়েতনামী সরকারের ওয়েবসাইটে জানানো হয়, দক্ষিণ ভিয়েতনামের ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় বিমানটির রাডার বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।

এরপর থেকেই অনুসন্ধান চালাচ্ছে বিভিন্ন দেশ । তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিধ্বস্ত বিমানের কোন ‘চিহ্ন’ খুঁজে পাওয়া যায়নি। ৫ জন শিশুসহ ২২৭ জন যাত্রী, এবং ১২ জন ক্রু নিয়ে বোয়িং ৭৭৭ বিমানটি যাত্রা শুরু করেছিল।  যাত্রীদের অধিকাংশ চীনা নাগরিক ছিল বলে জানায় চীনা বার্তা সংস্থা জিনহুয়া।

এস রহমান/