উপজেলায় ব্যবসায়ীদের দাপট অব্যাহত

0
65
Sujan

Sujanপ্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে অধিকাংশ প্রার্থীই ছিলেন ব্যবসায়ী। আগামি ১৫ মার্চ ৩য় ধাপের নির্বাচনেও চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে অধিকাংশ ব্যবসায়ী।

সোমবার সকালে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদ প্রার্থীদের হলফনামার বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরে।
৮৩টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩৯৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর হলফনামা বিশ্লেষণ করেছে সুজন। নির্বাচন কমিশনে প্রদত্ত হলফনামা বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে ৩৯৩ জন প্রার্থীর মধ্যে ২০৫ জন বা ৫২ দশমিক ৪২ শতাংশ ব্যবসায়ী।

এদের মধ্যে কৃষির সাথে জড়িত ১৯ দশমিক ৩৪ শতাংশ বা ৭৬ জন। ২৬ জনের পেশার কথা হলফনামায় উল্লেখ করেনি।
৫ লাখ টাকার কম সম্পদ আছে ৫৯ জনের। কোটিপতির সংখ্যা ৫০ জন। এর মধ্যে ৫ কোটি টাকার বেশি সম্পদের মালিক ৫ জন। তবে অনেক প্রার্থীই সম্পদের মূল্য উল্লেখ না করায় আর্থিক মূল্যে সম্পদের প্রকৃত পরিমাণ নিরূপণ করা সম্ভব হয়নি। এছাড়া সম্পদের বর্তমান বাজার মূল্য উল্লেখ না করার কারণেও সম্পদের প্রকৃত পরিমাণ নিরূপণ করা যায়নি।
৩৯৩ জনের মধ্যে বছরে ২ লাখ টাকা বা তার চেয়ে কম আয় করেন ১২১ জন। তবে অধিকাংশ প্রার্থীর বছরে আয় ৫ লাখ টাকার নিচে।
দায়-দেনা ও ঋণের  তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, ৩৯৩ জনের মধ্য ৫৪ জন ঋণ গ্রহিতা। তবে এদের মধ্যে ৩৩৯ জনের কোন ঋণ নেই।
এছাড়া কোটি টাকার উপরে ঋণ নিয়েছেন ৭ জন। এর মধ্যে ৫ কোটি টাকার উপরে ঋণ রয়েছে ৫ জনের।
উপজেলা নির্বাচনের চেয়ারম্যন প্রার্থীদের মধ্যে আয়কর দেন ১৪৮ জন। ৫ হাজার টাকার চেয়ে কম আয়কর দেন ৯৬ জন।
৩৯৩ জনের মধ্য অধিকাংশ প্রার্থীই স্নাতক পাশ। তবে স্বল্পশিক্ষিত বা এস এস সি বা তার চেয়ে কম শিক্ষাগত যোগ্যতাসম্পন্ন প্রার্থী ১৩১জন। তবে এদের মধ্যে ৭৮ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী বিদ্যালয়ের গন্ডি পেরোতে পারেনি।
৩৯৩ জনের মধ্যে ১১৮ জনের বিরুদ্ধে বর্তমানে মামলা চলছে। অতীতে মামলা ছিল ১১৬ জনের। তবে ১৬ জনের বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় মামলা রয়েছে। এ ধারায় ২৭ জনের বিরুদ্ধে অতীতে মামলা ছিল।
সভায় সুজনের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ‘আমরা হলাফনামা প্রকাশের সুফল পাচ্ছি। তাই সরকারের কাছে তিনি আহ্বান জানান, আইন খতিয়ে হলফনামা প্রকাশ বন্ধের উদ্যোগ না নেওয়ার জন্য।
সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ আব্দুল হক, ঢাকা জেলা কমিটির সহ-সভাপতি আবুল হাসনাত, কেন্দ্রীয় কমিটির সহযোগী সমন্বয়কারী সানজিদা হক।
এইচকেবি/