ব্যাংকের দরজা খোলা থাকবে পথশিশুদের জন্য

0
112
child

childএতদিনে ব্যাংকিং সেবা নেওয়ার অধিকার পেল পথশিশুরা। এখন থেকে অভিভাবকহীন বস্তি, রাস্তাঘাট, রেলস্টেশন, বাসস্ট্যান্ড, লঞ্চঘাট ও ফুটপাতে বসবাসরত কর্মজীবী শিশুরা ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা জমা করার সুযোগ পাবে। মাত্র ১০ টাকায় ব্যাংক হিসাব খুলতে পারবে তারা। তবে, এক্ষেত্রে তাদের কোনো এনজিও বা প্রতিষ্ঠানের আশ্রয় নিতে হবে।

রোববার বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনটি ওই দিনই বাংলাদেশে কার্যরত সকল তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

প্রতিনিয়ত দেশের দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠিকে ব্যাংকিং খাতের আওতায় আনার চেষ্টা করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। স্কুল পড়ুয়া শিশু, দরিদ্র কৃষক, চামড়া শিল্পে কর্মরত শ্রমিক ও পোশাক শ্রমিকদের পর এবার পথশিশুদের ব্যাংকিং সেবার আওতায় আনা হলো।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, পথশিশু ও ক্ষুদ্র কর্মজীবী শিশুদের ভবিষ্যতে উন্নত কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও তাদেরকে ব্যাংকিং সেবার আওতায় আনয়নের লক্ষ্যে  মাত্র দশ টাকার বিনিময়ে ব্যাংক হিসাব খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এসব পথশিশু ও কর্মজীবী শিশু-কিশোরদের কল্যাণার্থে তাদের নামে ব্যাংকে সঞ্চয়ী হিসাব খোলার ক্ষেত্রে যেসব বেসরকারী সংস্থা (এনজিও) পথশিশু ও কর্মজীবী শিশু বা কিশোরদের ব্যাংক হিসাব পরিচালনা করতে আগ্রহী তাদের একটি তালিকা বাংলাদেশ ব্যাংক তৈরি করবে। এ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হওয়ার জন্য আগ্রহী এনজিও সমূহকে কোনো তফসিলি ব্যাংকের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের গ্রিন ব্যাংকিং অ্যান্ড সিএসআর ডিপার্টমেন্টে আবেদন করতে হবে। এ তালিকাভুক্তির ক্ষেত্রে এনজিওসমূহের সুনাম, বিশ্বাসযোগ্যতা, অভিজ্ঞতা, অবকাঠামোগত সুবিধা ইত্যাদি বিবেচনা করা হবে।

পথশিশু ও কর্মজীবী শিশু বা কিশোরদের পক্ষে হিসাব পরিচালনার দায়িত্ব মনোনীত এনজিওর অ-নূন্যতম দু’জন কর্মকর্তার ওপর ন্যস্ত হবে। উক্ত দু’জন কর্মকর্তার মধ্যে এক জন হিসাব বিভাগ সংশ্লিষ্ট এবং অপরজন মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা হতে হবে। সংশ্লিষ্ট এনজিওর পরিচালনা পর্ষদ বা ট্রাস্টি বোর্ডের অনুমোদন সাপেক্ষে কর্মজীবী শিশু বা কিশোরদের ব্যাংক হিসাব পরিচালনাকারী কর্মকর্তা মনোনীত হবেন।

পথশিশু ও কর্মজীবী শিশু বা কিশোরদের ব্যাংক হিসাব পরিচালনার দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট এনজিওর অ-নূন্যতম দু’জন কর্মকর্তা হলেও এসব হিসাবে জমা ও উত্তোলন সম্পর্কিত লেনদেনের দায়দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট এনজিওকেই বহন করতে হবে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এসএই/