গোজামিলের সংবিধান দিয়ে সাম্প্রদায়িকতা নির্মূল সম্ভব নয়: ড. মিজান

0
32

mizanমানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান বলেছেন, গোজামিলের সংবিধান দিয়ে কখনো সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদ নির্মূল করা যাবে না।

রোববার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) অডিটরিয়ামে আয়োজিত ‘সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদ বিরোধী জাতীয় সম্মেলনে’ বিশেষ বক্তা হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন। সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম ‘মুক্তিযুদ্ধ ৭১’ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

তিনি বলেন, একদিকে বলা হচ্ছে ৭২ এর সংবিধান ফিরিয়ে আনা হবে আবার অন্যদিকে রাষ্ট্রীয় মূলনীতি স্বাভাবিকভাবে পরিচালনা করা হচ্ছে এই গোজামিল দিয়ে কখনো সাম্প্রদায়িকতা নিষিদ্ধ করা যাবে না।

সংখ্যালঘূদের সম্পর্কে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের কিছু সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘সংখ্যালঘূরা থাকলে ভোট পাই না থাকলে জমি পাই’ এই নীতি পরিহার করতে হবে। এই আশা ও আকুতি যাদের আছে তাদের দিয়ে কখনো মুক্তিযদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না।

তিনি বলেন, জঙ্গিবাদীরা বাংলাদেশের মূলে আঘাত হানার চেষ্টা করছে। তারা মূল হাতিয়ার হিসেবে বেছে নিয়েছে ধর্মবাদ। তিনি মুক্তিযোদ্ধা ও স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিদের আরাম আয়েশী জীবন পরিহার করতে বলেন।  আরাম আয়েশের দিন শেষ। এখন সময় এসেছে বাড়ি-বাড়ি, ঘরে-ঘরে গিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা প্রকাশ করার।

তিনি সরকারের প্রতি জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধ ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ত্বরান্বিত করার দাবি জানান।

ড. মিজান বলেন, বাংলাদেশকে নিয়ে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। এই ষড়যন্ত্রের মূলে রয়েছে জামায়াত-শিবির চক্র। যারা বাংলাদেশকে বিশ্বের সামনে ভুলভাবে প্রকাশ করছে। বাংলাদেশকে রক্ষা করতে হলে সংখ্যালঘূদের নিরাপত্তা এদেশের জনগণকেই দিতে হবে।

সংগঠনের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক পরিকল্পনামন্ত্রী এয়ার ভাইস মার্শাল এ কে খন্দকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমিরিটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, বাংলাদেশ টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ম. হামিদ, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির, বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ, গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার, সংগঠনের সহ-সভাপতি লে. কর্ণেল আবু ওসমান চৌধূরী, সি আর দত্ত, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ-সম্পাদক রাখি দাস প্রকাস্ত, মুক্তিযোদ্ধা হারুন হাবিব প্রমুখ।

এএইচ/