‘২০১৫ সালের মধ্যে পোষাক শিল্পে ৩০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি সম্ভব’

0
68
ctg_trade_Fair

ctg_trade_Fairবাংলাদেশের অর্থনীতি যেভাবে এগিয়ে চলেছে ২০১৫ সালের মধ্যে ৩০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি  শুধুমাত্র তৈরি পোষাক শিল্প থেকে সম্ভব হবে বলে জানালেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহম্মেদ। শনিবার বিকেলে ‘২২তম চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা-২০১৪’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশ জেএসপি সুবিধা হারানোর পরও লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২৭৩ মিলিয়ন ডলার রপ্তানি বেড়েছে। বিএনপি-জামায়াত যদি হরতাল অবরোধের নামে দেশের অর্থনীতি ধ্বংসের জন্য নাশকতা না করতো তাহলে আরও ২০ শতাংশ রপ্তানি বাড়তো। এমন সমৃদ্ধি অর্থনীতির  জন্য প্রয়োজন রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা। এ সময় তিনি বলেন  কেউ আমাদের অর্থনীতিকে ধ্বংস করার জন্য কোনো ধরনের নাশকতা করার চেষ্টা করলে তা শক্ত হাতে প্রতিহত করা হবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেন, উপজেলা নির্বাচন ধারা প্রমাণ করে শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন নিরপেক্ষ হয়েছে। বিএনপি জাতীয় নির্বাচনে অংশ না করে যে ভুল তিনি করেছেন এখন তার জন্য তিনি খেসারত দিবেন। কারণ ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে দেশে যে সংসদ গঠিত হয়েছে তা পাচঁ বছর থাকবে। দেশে আর কোনোদিন তত্ত্বাবধায়ক সরকার ফিরে আসবে বলে জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এফবিসিসিআই’র সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ বলেন, দেশের রাজনীতি হবে অর্থনীতির সাথে সম্পর্ক। অর্থনীতির চাকা সচল না থাকলে রাজনীতি থাকবে না। তাই সকল রাজনৈতিক নেতাকে দেশের অর্থনীতির সাথে সম্পর্ক রেখে রাজনীতি করতে হবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার যে ছয়টি প্রকল্প হাতে নিয়েছে তার মধ্যে চট্টগ্রাম বন্দরের উন্নয়ন, গভীর সমুদ্র বন্দর স্থাপন, ঢাকা- চট্টগ্রাম মহাসড়কের চার লেইনের কাজ দ্রুত শেষ করাকে অগ্রাধিকার দেওয়া ইত্যাদি। দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে চট্টগ্রাম বন্দরের ভূমিকা অপরিসীম। চট্টগ্রামে ব্যবসা-বাণিজ্যে গ্যাসের যে সংকট রয়েছে তা সমাধানের জন্য সরকার ইতোমধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছে। বাণিজ্যিক নগরী চট্টগ্রামের উৎপাদনমূখী সব ধরনের কাজ সচল রাখতে নিরবিচ্ছিন্ন গ্যাস সংযোগের বিকল্প নেই বলেও মন্ত্রী জানান।

তোফায়েল আহম্মেদ আরও বলেন, আমি যেহেতু ব্যবসায়ী নই তাই ব্যবসায়িক জ্ঞান আমার কম। তাই ব্যবসায়ীদের সকল অসুবিধার কথা শুনার জন্য আমি দেশের সকল ব্যবসায়ীদের থেকে ২৬ জন প্রতিনিধি নিয়ে দু-একদিনের মধ্যে একটি কমিটি গঠন করবো। প্রতিনিধিদের দেওয়া পরামর্শ অনুসারে অর্থমন্ত্রনালয় ও বাণিজ্য মন্ত্রনালয় মিলে সকল সমস্যা সমাধান করার চেষ্টা করবো।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন এম এ লতিফ এমপি, মেলা আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান নূরুন নেওয়াজ সেলিম ও চিটাগং চেম্বারের সভাপতি মাহবুব আলম।