সর্বোচ্চ লেনদেন কমেছে সেবা ও বিবিধ খাতের

0
77
Tourn over

Tourn overঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহে সর্বোচ্চ লেনদেন কমেছে সেবা ও আবাসন এবং বিবিধ খাতের। এই খাত দুইটির লেনদেন কমেছে ৪৪ শতাংশ। এই খাত দুইটির পুরো সপ্তাহে মোট লেনদেনে অংশ ছিল শূন্য এবং ৪ শতাংশ। আর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ লেনদেন কমেছে পাট খাতের। ৪৩ শতাংশ লেনদেন কমেছে এই খাতের। মোট লেনদেনে পাট খাতের অংশ ছিল শূন্য শতাংশ।

বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত সপ্তাহে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বেশির ভাগ খাতের লেনদেন কমেছে। মোট তালিকাভুক্ত ২০ টি খাতের মধ্যে ১২টি খাতের লেনদেন কমেছে। বাকী ৮টি খাতের লেনদেন বেড়েছে। এর মধ্যে বেশির ভাগ বড় খাতের লেনদেন কমেছে। বড় বা ভালো খাতের মধ্যে রয়েছে- প্রকৌশল, খাদ্য ও আনুষঙ্গিক, মিউচ্যুয়াল ফান্ড এবং ওষুধ খাত।

আর ৪১ শতাংশ লেনদেন কমেছে ট্যানারি খাতের। মোট লেনদেনে এই খাতের অংশ ছিল ২ শতাংশ।

এছাড়া প্রকৌশল খাতের লেনদেন কমেছে ৩২ শতাংশ। গত সপ্তাহে ডিএসইর মোট লেনদেনে এই খাতের অংশ ছিল ৯ শতাংশ । খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের লেনদেন কমেছে ৩১ শতাংশ আর মোট লেনদেনে অংশ ছিল ৭ শতাংশ। ব্যাংক বর্হিভূত আর্থিক খাতের লেনদেন কমেছে ২৭ শতাংশ। এই খাতের মোট লেনদেনে অংশ ছিল ৭ শতাংশ।

মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের লেনদেন কমেছে ২৩ শতাংশ। মোট লেনদেনে অংশ ছিল ২ শতাংশ। বস্ত্র এবং ভ্রমণ খাতের লেনদেন কমেছে ১২ শতাংশ। এই দুইটি খাতের মোট লেনদেনে অংশ ছিল ৯ এবং ১ শতাংশ্। সিরামিক খাতের ১০ শতাংশ লেনদেন কমেছে এবং মোট লেনদেনে অংশ ছিল শূন্য শতাংশ। আর সাধারণ বিমা খাতের ৭ শতাংশ লেনদেন কমেছে। এই খাতের মোট লেনদেনে অংশ ছিল ১ শতাংশ।

অপরদিকে সিমেন্ট এবং টেলিকমিউনিকেশন খাতের ৩১ শতাংশ লেনদেন বেড়েছে। মোট লেনদেনে এই দুইটি খাতের অংশ ছিল ৯ এবং ৮ শতাংশ। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের লেনদেন বেড়েছে ১৭ শতাংশ। মোট লেনদেনে অংশ ছিল ১৩ শতাংশ।

এছাড়া ব্যাংক খাতের লেনদেন বেড়েছে ৩ শতাংশ। ডিএসইন লেনদেনে এই খাতের অংশ ছিল ৯ শতাংশ। জীবন বিমা খাতের ৪ শতাংশ লেনদেন বেড়েছে। মোট লেনদেনে এই খাতের অংশ ছিল ৬ শতাংশ। তথ্য প্রযুক্তি খাতের ৬ শতাংশ, পেপার অ্যান্ড প্রিন্টিং খাতের ৩ শতাংশ এবং ওষুধ খাতের ৮ শতাংশ লেনদেন বেড়েছে।

এমআরবি/