‘বিদ্যুৎ এ মূল্য বৃদ্ধি করা দুরভিসন্ধিমূলক’

0
90
cab
ক্যাবের লোগো
cab
ক্যাবের লোগো

বিদ্যুৎ সেক্টরে চুরি ও লুটপাট বন্ধ না করে বারবার মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়েছে কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব)।

তারা আজ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই প্রতিবাদ জানায়।

বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেশন কমিশন (বিইআরসি) গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির জন্য বিগত তিন দিন ধরে অনুষ্ঠিত গণশুনানিতে ভোক্তাদের স্বার্থ বিবেচনা না করে ব্যবসায়ী ও কমিশনভোগীদের স্বার্থে দাম বাড়োনো খুড়া যুক্তিতে সায় প্রদান, ধনী, উচ্চ মধ্যবিত্ত ও বড় গ্রাহকের উপর মূল্য কম দিয়ে নিন্মবিত্ত, মধ্যবিত্ত ও সাধারণ গ্রাহকের উপর সবচেয়ে বেশী মূল্যবৃদ্ধির অগ্রনণযোগ্য প্রস্তাবে বিইআরসির সায় প্রদানে করে তারা প্রমাণ করেছে বিইআরসি সাধারণ গ্রাহক স্বার্থ দেখার চেয়ে ব্যবসায়ী ও উৎপাদকের স্বার্থ সংরক্ষনে নিয়োজিত।

ক্যাবসহ বিভিন্ন নাগরিক সংগঠনগুলি দীর্ঘদিন যাবৎ সিস্টেম লস ও অবৈধ সংযোগের নামে বিদ্যুৎ চুরির কাজে নিয়োজিত পিডিবি, ডেসকো, আরইবি, ডিপিডিসি, ওজোপাডিকোসহ বিভিন্ন বিতরনকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে সরকারি কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করে তাদের এই অনিয়মের প্রতিকার না করে গ্রাহকের ঘাড়ে অধিক মূল্য চাপানোর ভোক্তা স্বার্থ বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত থাকা অধিকন্তু সরকারি-বেসরকারি বিদ্যুৎ উৎপাদনকারীদের স্বার্থ সংরক্ষণে কাজ করায় বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেশন কমিশনকে অবিলম্বে পুর্ণগঠন করে অবিলম্বে যোগ্য লোকদেরকে নিয়োগের দাবি জানিয়েছেন কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও মহানগর কমিটি।

নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন বিদ্যুৎ বিভাগের কানণ্ড জ্ঞানহীন ম্যারাথন লোডশেডিং, অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে উপরি আদায়, মিটার নষ্ট ইত্যাদি বলে গড় বিল আদায়, মিটার টেম্পারিং, ট্রান্সফরমার বাণিজ্য, জুনের আগের অধিক বিল করে গ্রাহকের ওপর বিলের বোঝা চাপিয়ে টার্গেট পূরণ, অধিকন্তু চুক্তিভিত্তিক ভাড়াটিয়া মিটার রিডারদের মাধ্যমে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল আদায়, ডিজিটাল মিটার স্থাপনের পর আবার নতুন করে যোগ হয়েছে স্লাব নির্ধারণ ও অযৌক্তিক বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি। সরকার বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের চুরি বন্ধ না করে, সেবার মান না বাড়িয়ে ক্ষুদ্র গ্রাহক পর্যায়ে অপেক্ষকৃত বেশী দাম বাড়ানোর প্রস্তাব অপরিপক্ষ ও জনস্বার্থ বিরোধী বলে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে এ ধরনের প্রস্তাব প্রত্যাহারের দাবি জানান।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরও অভিযোগ করেন বর্তমানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের যে উর্ধ্বগতি পাগলা ঘোড়া বাজারের আগুন ছড়াচ্ছে যা মধ্যবিত্ত জনগনসহ সর্বস্থরের সাধারণ নাগরিকদের জীবনযাত্রাকে ভয়াবহ দুর্বীসহ করছে, সাধারণ মানুষ এখন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দামবৃদ্ধি, জীবন রক্ষাকারী ওষধের সীমাহীন মুল্যবৃদ্ধি, গণপরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি, বাড়িভাড়া বৃদ্ধি ইত্যাদি যন্ত্রণায় কাতর, সেখানে বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি এ যন্ত্রণাকে বহুগুনে বাড়িয়ে দিবে। বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির কারনে চলতি কৃষি উৎপাদন, শিল্প, ব্যবসা বানিজ্য ইত্যাদি খাতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। শিল্প কারখানা সমূহে নিরবিচ্ছিন্ন উৎপাদন এবং ফিনিশিড প্রোড়াক্টস’র মুল্য যৌক্তিক পর্যায়ে রাখার ক্ষেত্রে বিদ্যুৎ কার্যকর ভূমিকা রাখে বিধায় এ সমস্ত উৎপাদিত পণ্যের ভোক্তা পর্যায়ে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন ক্যাব কেন্দ্রিয় নির্বাহী কমিটি সদস্য এস এম নাজের হোসাইন, ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরী, ক্যাব মহানগরের সভাপতি জেসমিন সুলতানা পারু, সাধারণ সম্পাদক অজয় মিত্র শংকু প্রমুখ।

সাকি/