আমরা উন্নয়ন করছি আর তারা করছে খুন-খারাবি : হাসিনা

0
76
প্রধান মন্ত্রী

pmপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ পাঁচ বছর সফলতার সঙ্গে দেশ পরিচালনা করেছে, বাংলাদেশকে উন্নতির দিকে নিয়ে যাচ্ছে। অপরদিকে তাদের (বিএনপি-জামায়াত) কাজ হচ্ছে যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানো আর খুন-খারাবি করা।

আজ শুক্রবার ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেছেন।

অনুষ্ঠানে ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণের তাত্পর্য তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সোহারাওয়ার্দী উদ্যান বাঙালি জাতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ স্থান। জাতির পিতার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ গড়ার কাজ এখান থেকে শুরু হয়েছিল। তিনি বলেন, জাতির পিতার স্বপ্ন ছিল এ দেশের দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো।

সরকার বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্নকে বাস্তাবায়ন করকে কাজ করে যাচ্ছে। ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে আওয়ামী লীগ তার আদর্শকে সামনে রেখে জনগণের জন্য কাজ শুরু করে। কিন্তু ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে বিএনপি জোট দেশকে ধ্বংসের পথে নিয়ে যায়।

শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু করেছিলেন আর জিয়াউর রহমান জামায়াতকে এদেশে পুনর্বাসিত করেছেন।

তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়া এই যুদ্ধাপরাধীদেরকে মন্ত্রিত্ব দিয়ে এদেশের রক্তে রঞ্জিত পতাকা তাদের গাড়িতে  তুলে দিয়েছে। এ দেশের জনগণ আর তাদের দেখতে চায় না।

তিনি ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মানিলন্ডারিং প্রভৃতির কথা তুলে ধরেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, তাদের অপকর্মের জন্যই ১/১১ এর অবস্থা সৃষ্টি হয়। তিনি বলেন, ২০০১ সালে থেকে ২০০৬ বাংলাদেশের মানুষের জন্য কলঙ্কজনক অধ্যায়।

বিএনপি-জামায়াত জোটের সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াত হত্যা-খুন শুরু করেছে। আন্দোলনেরে নাম করে তারা দেড় শ মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে। নির্বাচন বানচাল করার উদ্দেশ্যে ৫ শ স্কুল পুড়িয়ে দিয়েছে। প্রিজাইডিং অফিসারকে হত্যা করেছে।’ এছাড়া ১৭ জন পুলিশ হত্যা করেছে, ৫৫ জন ড্রাইভার-হেল্পারকে পুড়িয়ে মেরেছে। মসজিদ-মাদ্রাসা পুড়িয়ে দিয়েছে, পবিত্র কোরান শরিফ তারা পুড়িয়ে দিয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ জঙ্গিবাদ আর মানিলন্ডারিংয়ের কারণে কালো তালিকায় নাম ওঠে ছিল। আওয়ামী লীগ সরকার এই কালো তালিকা থেকে বাংলাদেশকে মুক্ত করেছে।