জিএসপি বন্ধ হলে ও রপ্তানি বেড়েছে ২৭ কোটি : বাণিজ্যমন্ত্রী

0
32
যাপেক্সপোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে
যাপেক্সপোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে
banijjo montry
গ্যাপেক্সপোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রে জিএসপি বন্ধ হওয়ার পরও রপ্তানি বেড়েছে ২৭ কোটি ডলার। তারপরও জিএসপি পূনরুদ্ধারে শর্তগুলো দ্রুত পূরণ করার চেষ্টা চলছে।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় বাংলাদেশ এক্সেসরিজ অ্যান্ড প্যাকেজিং ম্যানুফ্যাকশ্চারার্স এসোসিয়েশনের (বিজিএপিএএমইএ) উদ্যোগে গ্যাপেক্সপোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, জিএসপির বাকি শর্তগুলো ৩০ মার্চের মধ্যে পূরণ করা হবে এবং এর রিপোর্ট ১৫ তারিখে পাঠানো হবে।

গত অর্থবছরে রপ্তানি আয় ছিল ২৭ বিলিয়ন ডলার আর চলতি অর্থবছরে তা রাজনৈতিক সংকট অতিক্রম করার পরেও রপ্তানি আয় ৩০ বিলিয়ন ডলার হবে বলে মনে করেন তিনি।

১৯৭১সালের ৭ মার্চের কথা স্মরণ করে তিনি বলেন,‘ বঙ্গবন্ধু একটি স্বনির্ভর দেশ চেয়েছিলেন। যে দেশ হবে গণতান্ত্রিক ও অসাম্প্রদায়িক। তিনি আজ নেই কিন্তু আমি মনে করি তার সেই স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে’।

এ সময় তিনি বেগম জিয়ার উদ্দেশে বলেন, বেগম জিয়া রাজবাড়ীতে বলেছেন উপজেলা নির্বাচনের পর আন্দোলনে যাবেন। আমি তাকে বলতে চাই, তিনি শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে অংশ না নিয়ে ভুল করেছেন। আগামি নির্বাচনও শেখ হাসিনার অধীনে হবে। একটা সরকার নির্বাচিত হলে পাঁচ বছর ক্ষমতায় থাকে। আমরাও থাকব।

দেশের অর্থনীতিতে আঘাত আসে বিএনপি এমন কোনো কর্মসূচি দিলে সরকারও কঠোর অবস্থানে যাবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্ণর এস. কে. সুর চৌধুরী বলেন, আমাদের গার্মেন্টস শিল্পের রপ্তানির ধারাবাহিকতা যদি ধরে রাখতে পারি তবে আমরা আগামিতে দ্বিগুণ কিংবা তিনগুণ রপ্তানি করতে পারব। চলতি অর্থবছরে রপ্তানির প্রবৃদ্ধি বেড়েছে ১৮ শতাংশ। এ প্রবৃদ্ধি আরও বাড়বে বলে আশা করেন তিনি।

এদিকে মেলার উদ্যোক্তারা জানান, রপ্তানি বাণিজ্যকে বহুমুখীকরণ এবং সম্প্রসারণের জন্য প্রতি বছরের ন্যায় এবারও চার দিনের আন্তর্জাতিক শিল্প মেলার আয়োজন করেছে তারা। এএসকে ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশন প্রা: লি: এবং জাকারিয়া ট্রেড অ্যান্ড ফেয়ার ইন্টারন্যিশনালের  যোথ উদ্যোগে মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় দেশি ও বিদেশি শিল্প প্রতিষ্ঠানসহ প্রায় ৫০০টি স্টল থাকছে। মেলায় অংশ নিচ্ছে ভারত,চায়না, পাকিস্তান, তাইওয়ান, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি দুবাইসহ ২৫ টি দেশ অংশ নিচ্ছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিজিএপিএমইএ সভাপতি রাফিজ আলম চৌধুরী, বিকেএমইএ-এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. হাতেম।

এমআর/কেএফ