বিমানের দুই কর্মকর্তার ফের ৫ দিনের রিমান্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
65

প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটির মামলায় গ্রেপ্তার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের আরও দুই কর্মকর্তাকে আবারও পাঁচ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দিয়েছে আদালত। বুধবার ঢাকার মহানগর হাকিম নুর নাহার ইয়াসমিন এ আদেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পরিদর্শক মাহবুব আলম আজ আসামিদের আদালতে হাজির করে ফের ১০ দিন রিমান্ড চাইলে বিমানের প্রকৌশলী নাজমুল হক ও টেকনিশিয়ান শাহ আলমের ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত।bangladesh_biman

এর আগে ১০ জানুয়ারি ওই দুই কর্মকর্তাকে সাত দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি দেন আদালত। এ নিয়ে এই মামলায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ১১ জন গ্রেপ্তার হলেন।

৮ জানুয়ারি এই মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের সাত কর্মকর্তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর এই সাতজনের আট দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

কারাগারে পাঠানো অন্য সাত কর্মকর্তা হলেন বিমানের প্রধান প্রকৌশলী (প্রোডাকশন) দেবেশ চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী (কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স) এস এ সিদ্দিক, প্রিন্সিপাল ইঞ্জিনিয়ার (মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড সিস্টেম কন্ট্রোল) বিল্লাল হোসেন, সামিউল হক, লুৎফুর রহমান, মিলন চন্দ্র বিশ্বাস ও জাকির হোসাইন।

এ ছাড়া মামলার অপর দুই আসামি বাংলাদেশ বিমানের প্রকৌশলী মো. রোকনুজ্জামান ও টেকনিশিয়ান সিদ্দিকুর রহমান কারাগারে রয়েছেন।

উল্লেখ, গত বছরের ২৭ নভেম্বর হাঙ্গেরি যাওয়ার পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমানের ইঞ্জিনে ত্রুটি দেখা দেয়। এ কারণে বিমানটি তুর্কমেনিস্তানে জরুরি অবতরণ করে। এ ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে বলা হয়, এটা ‘মানবসৃষ্ট’। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দুই দফায় বিমানের প্রকৌশল বিভাগের নয়জনকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী, এ ঘটনায় ফৌজদারি মামলা করার ব্যাপারে সম্মতি দেন প্রধানমন্ত্রী।

পরে ২০ ডিসেম্বর রাতে ঢাকা বিমানবন্দর থানায় বাংলাদেশ বিমানের প্রকৌশল বিভাগের নয়জন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। এতে আসামিদের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, অবহেলা ও ‘অন্তর্ঘাতমূলক কার্যক্রম’-এর অভিযোগ আনা হয়।

টি