বন্দর কর্মকর্তা লাঞ্ছনার ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতা কারাগারে

প্রতিনিধি

0
69
Port Ilias
চট্টগ্রাম বন্দর এলাকার স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মো. ইলিয়াস।

চট্টগ্রাম বন্দরের অফিসের কর্মকর্তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার মামলায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মো. ইলিয়াসের জামিন বাতিল করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

আজ বুধবার মো. ইলিয়াস আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করলে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম নাজমুল হোসেন চৌধুরী।

Port Ilias
চট্টগ্রাম বন্দর এলাকার স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মো. ইলিয়াস।

এ বিষয়ে অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন চৌধুরী জানান, বন্দর কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় জামিনে ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য মো. ইলিয়াস। পূর্বনির্ধারিত দিনে আজ মামলার হাজিরা দিতে আদালতে আসলে জামিন বাতিল করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২৮ ডিসেম্বর কাজ না দেওয়ায় অজুহাতে ২০ থেকে ২৫ জন লোক নিয়ে অফিসে গিয়ে বন্দরের মেরিন ওয়ার্কশপের ডেপুটি ইঞ্জিনিয়ার এমদাদুল হকের ওপর হামলা চালান আওয়ামী লীগ নেতা ইলিয়াস।

বন্দর সূত্রে জানা যায়, সে সময় সেখানে উপস্থিত আরও দুইজন কর্মকর্তাকে রুম থেকে বের করে দিয়ে এমদাদুল হকের মুখে আঘাত করেন রোটারিয়ান ইলিয়াস। এরপর তাকে মারধর করতে থাকেন।

এর এক পর্যায়ে কৌশলে বাথরুমে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দ্রুত বন্দরের সদস্য (হারবার অ্যান্ড মেরিন) কমডোর শাহিন আলমকে ফোনে বিষয়টি জানান। এরপর বন্দরের পরিচালক (নিরাপত্তা) লে. কর্নেল আবদুল গাফফার ও পুলিশকে ফোন করলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। বিষয়টি টের পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালায় দুর্বৃত্তরা।

নিরাপত্তার স্বার্থে ২৮ ডিসেম্বর বন্দর থানায় মামলা করেন বন্দর কর্মকর্তা এমদাদুল হক।

বন্দরের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কর্মকর্তাদের উপর রোটারিয়ান ইলিয়াসের হামলা বা মারধরের ঘটনা এটাই প্রথম নয়। অনেক কর্মকর্তা এবং পুলিশের উপর হামলার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। তবে আগে কোনো কর্মকর্তা বিষয়টি প্রকাশ না করায়- ক্রমান্বয়ে বেপরোয়া হয়েছে উঠেছে সে। এছাড়া বন্দরের কাজ নিয়ে শর্তানুয়ী কাজ না করেই অর্থ উত্তোলনের অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

অর্থসূচক/দেবব্রত/এমই/