শিশুকালে শুনতে পাওয়া শব্দই বেশি মনে থাকে

অর্থসূচক ডেস্ক

0
156
Mother & Child
মা ও শিশু। ফাইল ছবি

সাধারণত ৭/৮ মাস বয়সে শিশুদের মুখে আধো আধো বোলে শব্দ শোনা যায়। গবেষকরা জানান, জন্মের পর প্রথম কয়েক মাসেই শব্দ আয়ত্বে রাখতে শুরু করে শিশু। ওই সময় শুনতে পাওয়া ভাষা বা শব্দ পরবর্তীতেও মনে রাখে মানুষ। জীবনের শুরুতে শোনা ভাষা ও শব্দ মনে রাখাকে ‘শিশুর লুকানো ক্ষমতা’ বলে উল্লেখ করা হচ্ছে।

সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়ায় পরিচালিত এক গবেষণার পর এমন তথ্য জানানো হয়েছে। ওই গবেষক দলের নেতৃত্ব দেন সিউলের হ্যানইয়ং ইউনিভার্সিটির জিয়ং চো।

এতে বলা হয়েছে, দেশান্তর হওয়ার পর কিংবা জন্মের সময় শুনতে পাওয়া ভাষা ভুলে গেলে- এ লুকানো ক্ষমতা মানুষকে সহায়তা করে।

Mother & Child
মা ও শিশু।

গবেষণার বরাত দিয়ে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, শিশুকালের ভাষা স্মরণ রাখার ক্ষেত্রে ডাচ ভাষায় যোগাযোগকারী প্রাপ্ত বয়ষ্ক কোরিয়ানদের মধ্যে ব্যাপক সফলতা পাওয়া গেছে। নিয়মিত ডাচ ভাষায় যোগাযোগ রক্ষা করতে গিয়ে নিজেদের ভাষা থেকে অনেক দূরে সরে গিয়েছিলেন তারা।

গবেষকরা জানান, প্রতিটি শিশুর জন্মের পর থেকেই তাদের মা-বাবা নবজাতকের সঙ্গে নিয়মিত কথা বলতে থাকেন।

গবেষণার বরাত দিয়ে জিয়ং চো বলেন, জন্মের সময় শুনতে পাওয়া শব্দ, ভাষা এবং স্মৃতি ভুলে যাওয়ার কয়েক দশক পরও তা মানুষকে বিশেষ সুবিধা দেয়। গবেষণায় দেখা গেছে, জন্মের কয়েক মাস পর্যন্ত শুনতে পাওয়া শব্দ সহজেই চিহ্নিত করা সম্ভব হয়। ওই সব কিংবা ভাষা নতুন করে শেখার প্রয়োজন পড়ে না।

শিশুদের এমন স্মরণ ক্ষমতাকে প্রত্যেক মা-বাবার জন্য ব্যবহারিক বার্তা হিসেবে উল্লেখ করে ওই গবেষক বলেন, জন্মের পর থেকেই শব্দ এবং ভাষা শেখা শুরু করে শিশুরা। আমাদের গবেষণায় দেখা গেছে, জীবনের শুরুর দিকে শেখা ভাষা খুব সহজেই মানুষের মন ও মস্তিষ্কে বিশেষ স্থান দখল করে নেয়।

জন্মের পর থেকে নবজাতকের সঙ্গে যতো বেশি পরিমাণে সম্ভব কথা বলার জন্য তাদের মা-বাবাদের প্রতি অনুরোধ জানান জিয়ং চো। তিনি বলেন, জন্মের পর থেকেই মায়ের গলার শব্দ চিহ্নিত করার চেষ্টায় থাকে শিশুরা। ওই সময় শিশুরা প্রতিটি শব্দ বোঝার এবং তা মনে রাখার চেষ্টা করে।

অর্থসূচক/এমই/