প্রাকৃতিক দুর্যোগে উদ্ধার কাজ করবে ড্রোন

অর্থসূচক ডেস্ক

0
60
drone
ইসরায়েলের কোম্পানি আরবান এরোনটিকসের তৈরি করা একটি ড্রোন।

প্রাকৃতিক দুর্যোগে দুর্গম এলাকায় আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধারে কাজ করবে ড্রোন। দূর নিয়ন্ত্রিত স্বয়ংক্রিয় যন্ত্রটি বিপন্ন মানুষকে পৌঁছে দেবে নিরাপদ জায়গায়।

drone
ইসরায়েলের কোম্পানি আরবান এরোনটিকসের তৈরি করা একটি ড্রোন।

সম্প্রতি এমন একটি ড্রোনের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে ইসরায়েলের কোম্পানি আরবান এরোনটিকস। গত ১৫ বছর ধরে এ ড্রোন তৈরির জন্য অর্থ ব্যয় করছে করমোরন্ট নামের আরেকটি ইসরায়েলি কোম্পানি। এর জন্য এখন পর্যন্ত প্রায় ১ কোটি ৪০ লাখ ডলার খরচ করা হয়েছে। ৫০০ কেজি পর্যন্ত বহনে সক্ষম এ যন্ত্রটি ২০২০ সালের মধ্যে বাজারজাত করা হবে বলে জানিয়েছে করমোরন্ট। তারা জানিয়েছে, প্রতি ঘণ্টায় ১১৫ মাইল পথ পাড়ি দিতে সক্ষম ড্রোনটি। আর খাড়াভাবে আকাশে উড়তে পারবে এটি।

বড় বড় শহরের উঁচু দালানকোঠার ফাঁক দিয়ে বা বিদ্যুতের লাইনের নিচ দিয়ে উড়ে যেতে সক্ষম করমোরন্টের তৈরি এ ড্রোনটি।

আরবান এরোনটিকস কোম্পানির প্রধান নির্বাহী রাফি ইয়োলি বলেন, অবশেষে বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত ড্রোনটি।

drone2
পণ্য সরবরাহে ব্যবহৃত ড্রোন।

প্রসঙ্গত, ক্রমান্বয়ে বড় ব্যবসার অংশ হয়ে উঠছে ড্রোন। এর বাণিজ্যিক ব্যবহার বাড়ছে। ড্রোনের মাধ্যমে আকাশপথে গ্রাহকদের কাছে পণ্য পৌঁছে দিতে ইতোমধ্যে ড্রোন ব্যবহারের ঘোষণা দিয়েছে আমাজন। অন্যদিকে বাণিজ্যিকভাবে ড্রোন ব্যবহারের পাইলট প্রকল্প চালু করেছে চীনের একটি কোম্পানি।

লন্ডনের ইম্পিরিয়াল কলেজের এরিয়েলে রোবোটিক্স ল্যাবের পরিচালক ড. মিরকো কোভাচ বলেন, এ ধরনের ড্রোনগুলো নিরাপদ করার জন্য আরও অনেক কাজ বাকি। কিন্তু এগুলো বাজারে আসলে শহরে মানুষের যাতায়াতের ক্ষেত্রে বিপ্লব ঘটবে।

ইম্পিরিয়াল কলেজের আরেকজন ড্রোন বিশেষজ্ঞ রবি বৈদ্যনাথন বলেন, নিচুতে উড়তে পারে এমন যন্ত্র তৈরির ক্ষেত্রে ইসরায়েলি কোম্পানির এ সাফল্য মাইলফলক হয়ে থাকবে। প্রথম দিকে এগুলোকে সামরিক কাজে ব্যবহার করা হলেও ভবিষ্যতে বেসামরিক কাজেও এর ব্যবহার শুরু হবে।

অর্থসূচক/এমই/