শীর্ষ রেমিটেন্স পুরস্কার পেল ১০ ব্যাংক

0
66
Euro-dollar_pound_yen
ডলার, ইউরো, পাউন্ড, ইয়েন

Euro-dollar_pound_yenরেমিটেন্স (প্রবাসী আয়) আয়ের মাধ্যমে জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য ১০টি ব্যাংককে শীর্ষ রেমিটেন্স পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ ব্রান্ডিং ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে আরও ৫টি ব্যাংক।

প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর নন রেসিডেন্ট বাংলাদেশ (এনআরবি) এ স্বীকৃতি দিয়েছে।

মঙ্গলবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে এনআরবি সেন্টারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ সম্মাননা পদক তুলে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান। এছাড়া বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনা, ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত উইলিয়াম হেনা, এফবিসিসিআই-এর সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খন্দকার ইব্রাহিম খালেদ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন  সেন্টার ফর এনআরবির চেয়ারম্যান এস এম সেকিল চৌধুরী।

ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড পাওয়া ব্যাংকগুলো হলো- এবি ব্যাংক লিমিটেড, ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড, এক্সিম ব্যাংক লিমিটেড, ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড ও ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড। পাশাপাশি রপ্তানি খাতে অবদানের জন্য বাংলাদেশ নিটওয়্যার অ্যান্ড ম্যানুফ্যাকচারিং এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিকেএমইএ) কে পুরস্কৃত করেছে এনআরবি সেন্টার।

একই সঙ্গে প্রবাসী আয় আহরণে শীর্ষে থাকা  ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডকে স্বর্ণ পদক, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডকে রৌপ্যপদক ও সোনালী ব্যাংক লিমিটেডকে ব্রোঞ্জপদকে ভূষিত করা হয়েছে। এছাড়া বিশেষ পুরস্কার পেয়েছে জনতা ব্যাংক লিমিটেড, ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড, পুবালী ব্যাংক লিমিটেড, প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড ও সিটি ব্যাংক লিমিটেড।

গভর্নর তার বক্তব্যে বলেন, প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স জিডিপি প্রবৃদ্ধিতে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে। বর্তমানে দেশের জিডিপিতে দেশের রেমিট্যান্সের অবদান ১০ শতাংশ। এত বড় রাজনৈতিক অস্থিরতার পরও  দেশের অর্থনীতি অবিশ্বাস্যভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। এর অন্যতম কারণ রেমিট্যান্স প্রবাহ।

তিনি বলেন, ভবিষ্যতে রেমিটেন্স প্রবাহের এই ধারা অব্যহত রাখতে আমাদের জনশক্তি উন্নয়ন ব্যুরোকে আরও সচেতন হতে হবে। যাতে করে আমরা দক্ষ মানবশক্তি পাঠাতে পারি।

দেশের রেমিট্যান্স প্রবাহ আরও বাড়াতে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ৩৭টি ব্যাংকের এক্সচেঞ্জ হাউজ রয়েছে। মিয়ারমারের সাথে অর্থনৈতিক সম্পর্ক উন্নয়ন সুযোগ কাজে লাগাতে দেশটিতে এক্সচেঞ্জ খোলার চিন্তা-ভাবনা চলছে বলে জানান তিনি।

এসএই/