শেষ পর্যন্ত আফ্রিদির কাছেই হারল ভারত

0
81
আফ্রিদি

আফ্রিদিশেষ মুহূর্তে আফ্রিদির ম্যাজিকে হেরে গেল ভারত। ভারতের দেওয়া ২৪৬ রানের টার্গেট নিয়ে খেলতে নেমে শুরু থেকেই চাপের মুখে পড়ে পাকিস্তান। শেষ মুহূর্তে দলের যখন টালমাটাল অবস্থা তখন দুটি ছক্কা হাকিয়ে ২ বল হাতে রেখেই জয় ছিনিয়ে নেয় পাকিস্তান।

এর আগে টসে হেরে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ পায় ভারত। ৫০ ওভার খেলে ৮ উইকেটের বিনিময়ে তারা সংগ্রহ করে ২৪৫ রান।

পাকিস্তানের ইনিংসের ৪৪তম ওভারে মোহাম্মদ হাফিজ প্যাভিলিয়নের পথে হাঁটা দিলে বুনো উল্লাস শুরু করে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তার যথার্থ একটা কারণও আছে। কেননা বল হাতে ঔজ্জল্য ছড়ানোর পর ব্যাট হাতেও দারুণ সপ্রতিভ ছিলেন পাকিস্তানি এই অলরাউন্ডার। মূলত ব্যাট হাতে হাফিজের ৭৫ রানের সাথে সাথে বোলিংয়ের ২২ গজে তার দুই উইকেট ভারতীয়দের ব্যাকফুটে করে দেয়। এরপর পাকিস্তানের ইনিংসের শেষে ফিনিশিং টাসটা দিয়ে দেন ‘বুমবুম’ শহিদ আফ্রিদি। ফলে এশিয়া কাপের পাক-ভারত লড়াই থেকে ছিটকে পড়ে বিরাট কোহলি অ্যান্ড কোং। যখন মহানাটকীয়তার পর এক উইকেটের জয় তুলে নেয় পাকিস্তান।

রোববার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে ভারতের ছুঁড়ে দেয়া লক্ষ্য তাড়ায় দারুণ সূচনা পায় পাকিস্তান। সিন্ধু পাড়ের দেশটি উদ্বোধনী জুটিতেই তোলে ৭১ রান। আহমেদ শেহজাদ ও শারজিল খান ক্রিকেটের অঅনুমেয় শক্তিদের উড়ন্ত সূচনা পাইয়ে দেন। কিন্তু ইনিংসের একাদশ ওভারে এই জুটির ভাঙ্গনের পর হঠাৎ করেই ভেঙ্গে পড়ে পাকিস্তানের টপ অর্ডার।  ২১ রানের ব্যবধানে আহমেদ শেহজাদ, মিসবাহ উল হক ও উমর আকমলের তিন তিনটি উইকেট হারায় দলটি। তখন পাকিস্তান ভক্তদের মনে হয়তো দুরুদুরু কাঁপুনি শুরু হয়ে গিয়ছিল।  তবে হাফিজের ব্যাট এই শঙ্কাটা বড় হতে দেয়নি।  পঞ্চম উইকেটে শোয়েব মকসুদকে নিয়ে  ৮৭ রানের জুটি গড়ে পাকিস্তানের জয়ের ভিত গড়ে দেয় এই জুটি।  পরে সেই পথ অনুসরন করে শহিদ আফ্রিদি ও উমর গুল বাকি পথটা পাড়ি দেন। যখন আফ্রিদি ঠিক আফ্রিদি সুলভ একটি ইনিংস উপহার দিয়ে ঝড়ো ৩৪ রান করেন। এতে করে দুই বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় পাকিস্তান।

এর আগে পাকিস্তানের বোলিং বনাম ভারতের ব্যাটিংয়ের লড়াইয়ে আধিপত্য ছড়ায় পাক বোলাররাই। এদিন বাংলাদেশের বিপক্ষে আধিপত্য ছড়ানো ভারতীয় ব্যাটিং লাইনকে শুরুতেই ধাক্কা দেন মোহাম্মদ হাফিজ। এরপর ভয়ংকর বিরাট কোহলিকে দ্রুত সাজঘরে ফেরান উমর গুল। কিন্তু তারপরেও ভারতের রানটা দুইশোর্ধ কারণ ত্রয়ী রোহিত শর্মা, আম্বাতি রাইডু ও রবীন্দ্র জাদেজা একই দিনে জ্বলে ওঠেন। এই তিন তারকাই অর্ধ শতকে শেষ পর্যন্ত আট উইকেটে ২৪৫ রান করে ভারত। পাকিস্তানি স্পিনার সাঈদ আজমল ৪০ রানের বিনিময়ে তিনটি উইকেট শিকার করেন। দুটি উইকেট পেয়েছেন মোহাম্মদ হাফিজ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত: ২৪৫/৮ (রাইডু ৫৮, আজমল ৩/৪০)

পাকিস্তান: ২৪৯/৯ (হাফিজ ৭৫, অশ্বিন ৩/৪৪)

ফল: পাকিস্তান ১ উইকেটে জয়ী।

সাকি/