বিকেলে বাংলাদেশ ব্যাংকে বৈঠক, বিএসইসির অনেক জিজ্ঞাসা

0
70

BSEC_BBকথা রাখছে না মুদ্রা বাজারের অভিভাবক বাংলাদেশ ব্যাংক। পুঁজিবাজারকে প্রভাবিত করতে পারে এমন কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে বিএসইসির সঙ্গে আলোচনার কথা থাকলেও তা করছে না তারা। সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের দুটি সিদ্ধান্তে পুঁজিবাজারে ফের অস্থিরতা ছড়িয়ে পড়েছে। ব্যাংক ও মুদ্রা বাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থার এমন অবস্থানে উদ্বিগ্ন বাংলাদেশ ব্যাংক। আজ বিকেলে অনুষ্ঠেয় এক সমন্বয় বৈঠকে এ উদ্বেগের বিষয়টি তুলে ধরবে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ আ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। পাশাপাশি সম্প্রতি নেওয়া দুটি সিদ্ধান্তের বিস্তারিত তথ্য ও সম্ভাব্য প্রভাব সম্পর্কে বাংলাদেশ ব্যাংকের পর্যবেক্ষণ জানার চেষ্টা করবে।

জানা গেছে বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংকের সম্প্রতি জারি করা একটি সার্কুলারের সম্ভাব্য প্রভাব সম্পর্কে জানতে চাইবে বিএসইসি। ওই সার্কুলারে পুঁজিবাজারে ব্যাংকের সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে ব্যাংকভিত্তিক ব্রোকারহাউজ ও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগ সক্ষমতা বাড়বে না-কি কমবে তা স্পষ্ট নয়। এ অস্পষ্টতার প্রভাব পড়েছে বাজারে। এর আগে জানুয়ারি মাসের শেষভাগে পুঁজিবাজারে ব্যাংক ও তার সহযোগী প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগের তথ্য দৈনিকভিত্ততে সংগ্রহ শুরু করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই দুটি ঘটনায় হঠাৎ অস্থির হয়ে উঠেছে পুঁজিবাজার। চলছে দর পতন। লেনদেনও কমে গেছে বেশ।

ওই সার্কুলারের ফলে কয়টি সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগ সক্ষমতা কমবে, কমলে কতটুকু কমবে- সে বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে তথ্য-উপাত্ত চাইবে বিএসইসি। বিএসইসি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকে অনুষ্ঠেয় ওই বৈঠকে আরও তিনটি নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রতিনিধি উপস্থিত থাকবে। সংস্থাগুলো হচ্ছে-মাইক্রো ক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটি (এমআরএ), বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) ও কোম্পানি আইনের প্রশাসক জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মস পরিদপ্তর (আরজেসি)।

২০১০ সালে পুঁজিবাজারে ভয়াবহ ধসের অন্যতম কারণ মনে করা হয় বাংলাদেশ ব্যাংকের অসময়োচিত হস্তক্ষেপকে। অল্প সময়ের মধ্যে সব ব্যাংককে বর্ধিত বিনিয়োগ প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া বাজারে শেয়ার বিক্রির তীব্র চাপ তৈরি হয়। আর এতেই বাজার তাসের ঘরের মত ভেঙ্গে পড়ে। এ বাস্তবতায় ২০১২ সালে অর্থমন্ত্রণালয় বাংলাদেশ ব্যাংক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডসহ (এনবিআর) সব নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে পুঁজিসংক্রান্ত যে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে বিএসইসির সঙ্গে আলোচনা করে নেওয়ার পরামর্শ দেয়। সংস্থাগুলো এ বিষয়ে প্রতিশ্রুতিও দেয়। কিন্তু বাস্তবে বাংলাদেশ ব্যাংক ওই প্রতিশ্রুতি রাখছে না।