কোলেস্টেরল কী ?

0
168
Cholesterol_Spacefill
Cholesterol_Spacefill
কোলেস্টেরল অনুর একটি প্রতিকৃতি

কোলেস্টেরল এক ধরনের চর্বিজাতীয়, তৈলাক্ত স্টেরয়েড যা কোষের ঝিল্লি বা (সেল মেমব্রেনে)-এ পাওয়া যায় এবং যা সব প্রাণীর রক্তে পরিবাহিত হয়। স্তন্যপায়ী প্রাণীদের সেল মেমব্রেনের এটি একটি অত্যাবশ্যক উপাদান। এই উপাদান মেমেব্রেনের মধ্য দিয়ে তরল পদার্থের ভেদ্যতা সচল রাখে এবং তার তারল্য বজায় রাখে। এছাড়াও কোলেস্টেরল একটি জরুরি প্রিকার্সার মলিকিউল যা বাইল আসিড, স্টেরয়েড হরমোন এবং স্নেহজাতীয় পদার্থে দ্রাব্য ভিটামিনের জৈব সংশ্লেষ ঘটায়। কোলেস্টেরল সবচেয়ে জরুরি স্টেরল যা প্রাণীদেহে সংশ্লেষিত হয়। কিন্তু অন্যান্য ইউকারইওট যেমন গাছপালা এবং ছত্রাকের দেহে এটি অল্প পরিমাণে সংশ্লেষিত হয় । প্রোক্যারিওট যেমন ব্যাকটেরিয়ার মধ্যে এটি একবারেই দেখা যায় না.

এই নাম কোলেস্টেরলের উত্স গ্রিক শব্দদ্বয় কলে – (পিত্ত) এবং স্টেরস (ঘন পদার্থ)। শব্দের শেষের রাসায়নিক বিভক্তি -অল অর্থাৎ, এলকোহল কারণ ফ্রাসোয়া পুলেতিয়ার দে লা সল ১৭৬৯-এ প্রথমে কলেস্টেরলকে পিত্তাসয়ের পাথর হিসেবে চিহ্নিত করেন। যাই হোক ১৮১৫ সালে রসায়নবিদ ইউজিন শেভ্রিউল এই যৌগিকের নাম দেন ‘কোলেসটেরাইন’।

কোলেস্টেরল প্রধানত আমাদের যকৃতে তৈরি হয়, কিন্তু আমরা যে সব খাবার খাই, তার মধ্যেও এটি পাওয়া যায়। আমাদের যতখানি কোলেস্টেরল দরকার, আমাদের শরীরই তা তৈরি করে নেয়। কিন্তু ঠিক কী কী কারণে আমাদের কোলেস্টেরলের প্রয়োজন হয় তা আমাদের অবশ্যই জানা দরকার। আসলে কোলেস্টেরল বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে, যাদের মধ্যে আছেঃ
# কোষের আবরক ঝিল্লী তৈরি ও তার রক্ষণাবেক্ষণ করা
# যৌন হর্মোন তৈরি করা
#পিত্ত লবণ তৈরী করা, যা আমাদের খাদ্য পাচনে সাহায্য করে
# ভিটামিন ডি তৈরী করা..

সামগ্রিক পরিদর্শন :

যেহেতু কলেস্টেরল মানবদেহের জন্য অত্যাবশ্যক, সেইজন্য মানুষের শরীরে এটি নতুনভাবে অর্থাত ডি নোভো উপায়ে সংশ্লেষিত হয়। তবে রক্তচলাচল যতই উচু মাত্রায় হোক না কেন তা নির্ভর করে লিপোপ্রোটিনের ভিতরে যোগাযোগের ওপর। আথেরোসক্লেরোসিসের ঊর্ধ্বতনের সঙ্গে এটি ভীষণভাবে সম্পৃক্ত। সাধারণত ৬৮ কেজি ওজনের মানুষের শরীরের মোট কোলেস্টেরল সংশ্লেষ ১ গ্রাম (১০০০ মিলিগ্রাম)-এর কাছাকাছি (স্বয়ংক্রিয়ভাবে মোট খাবারের পরিমাণ সমন্বয় করে) এবং যার মোট বডি কন্টেন্ট দাঁড়ায় ৩৫ গ্রা. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য দেশ যাদের খাদ্যাভ্যাস একইরকম তারা সাধারণত দিনে বাড়তি ২০০-৩০০ মিলিগ্রাম খান। কোলেস্টেরল পুনর্ব্যবহৃত হয়.যকৃত দ্বারা পিত্তর মাধ্যমে পৌষ্টিক অন্ত্রে এটি নিষ্কাশিত হয়। সাধারণত ৫০ শতাংশ নিষ্কাশিত কলেস্টেরলের নাড়ির দ্বারা পুনঃশোষিত হয়ে রক্তধারায় ফিরে আসে। অন্ত্রে কলেস্টেরল শোষনের পদ্ধতি খুব বাছাই করে হয়। বনজ স্টয়ানলস এবং স্টেরল (যা কলেস্টেরলের থেকেও বেশি আথেরোস্ক্লেরসিসের ঊর্ধ্বতন ঘটায়) নিষ্কাশিত হয় এবং তা শরীর থেকে বের করে দেওয়ার জন্য অন্ত্রের নালিকাগহ্বর-এ চলে আসে।

কলেস্টেরল পরীক্ষা :

আমেরিকান হার্ট আসোসিয়েশন ২০ বছর এবং তার চেয়ে বেশি বয়েসী সবার জন্য ৫ বছরে অন্তর একবার কলেস্টেরল পরীক্ষা করা সুপারিশ করেন.

১২ ঘণ্টা উপোশ করে থাকার পর চিকিত্সক রক্তের নমুনা সংগ্রহ করেন বা বাড়িতেই কলেস্টেরলের মাত্রা পরীক্ষা করে দেখার যন্ত্রের সাহায্যে লিপোপ্রোটিন প্রোফাইল নির্ধারণ করা যায়। এর দ্বারা মোট কলেস্টেরল, LDL (খারাপ) কলেস্টেরল, HDL ভালো ) কলেস্টেরল এবং ট্রাইগ্লিসেরাইডস মাপা যায়। যাদের মোট কলেস্টেরল 200 mg/dL বা তার বেশি, যে সব পুরুষের এবং মহিলার বয়েস যথাক্রমে ৪৫ এবং ৫০-এর বেশি আর যাদের HDL (ভালো) কলেস্টেরল 40 mg/দল-এর কম বা যাদের অনান্য ঝুঁকি যেমন হার্টের অসুখ অথবা স্ট্রোকের আশঙ্কা রয়েছে তাদের সুপারিশ করা হয় ৫ বছরে একাধিকবার কোলেস্টেরল পরীক্ষা করে দেখতে।