রোববার হল দখলমুক্ত করবে জবি শিক্ষার্থীরা

0
65
jnu

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ভূমিদস্যুদের বে-দখলে থাকা তিনটি হল উদ্ধারে আগামিকাল রোববার আবারও যাবে ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বেদখলে থাকা হল উদ্ধার সংগ্রাম পরিষদ’। সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক ও শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফুল ইসলাম অর্থসূচককে এ কথা জানান। একই সাথে বেদখলে থাকা হল উদ্ধারে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

বেদখলে থাকা ওই হল তিনটি হলো- তিব্বত, শাহবুদ্দিন ও আবদুর রহমান হল। এরমধ্যে তিব্বত হল দখল করে আছেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা-৭ আসনের স্বতন্ত্র সাংসদ হাজী মোহাম্মদ সেলিম। আর শাহবুদ্দিন ও আবদুর রহমান হলে পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন কয়েকজন পুলিশ সদস্য।

এদিকে, দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার, বিশ্ববিদ্যালয়ের বেদখল থাকা ১০টি হল উদ্ধার ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের আবাসনের ব্যবস্থা নিশ্চিত করাসহ বিভিন্ন দাবিতে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো আজ শনিবার কর্মবিরতি কর্মসূচি পালন করছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

এতে বন্ধ রয়েছে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম। তবে পূর্বনির্ধারিত পরীক্ষা এর আওতামুক্ত থাকবে বলে জানিয়েছে সমিতি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী জানায়,  “আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ বিভাগের শিক্ষক ক্যাম্পাসে আসেননি। দু’একটি বিভাগের ক্লাস-পরীক্ষা চললেও ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি অনেক কম”।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অশোক কুমার সাহা বলেন, “শিক্ষকদের কর্মবিরতি বেলা ১১টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত। ওই সময়ের আগে কয়েকটি বিভাগে ক্লাস-পরীক্ষা নিয়েছেন শিক্ষকেরা”।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, বিশ্ববিদ্যালয়সংলগ্ন ইসলামপুর এলাকায় হাজী সেলিমের দখলে থাকা তিব্বত হল দখল করতে গেলে গত রোববার হামলা চালায় পুলিশ। এতে চার শিক্ষকসহ প্রায় তিন শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হন। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশের লালবাগ বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) হারুন অর রশিদ ও কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামানকে প্রত্যাহারসহ বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

এসএসআর