সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রবাসীদের বিনিয়োগ বাড়াবে : আয়েবা

0
40

AEBAসুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়ন করা হলে প্রবাসীদের কয়েক শ বিলিয়ন টাকা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করা যাবে বলে জানিয়েছেন অল ইউরোপিয়ান বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন (আয়েবা)।

শুক্রবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে ভিআইপি লাউঞ্জে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের মহাসচিব ফ্রান্স প্রবাসী কাজী এনায়েত উল্লাহ বলেন, রাজনৈতিক অস্থিরতা দূর হলে এবং অর্থনীতিতে স্থিতিশীলতা ফিরে আসলে বিভিন্ন শিল্পক্ষেত্রে ইউরোপের এক মিলিয়ন লোকের কয়েক শ বিলিয়ন অলস টাকা বিনিয়োগ করা যাবে। আর এতে দেশের হাজার হাজার বেকার লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে।

তিনি বলেন, প্রবাসীদের অনেকের কাছে অনেক অলস অর্থ পড়ে আছে। বিদেশিদের বিনিয়োগে কার্যকরী  ও নিরাপত্তামূলক সঠিক নীতিমালা তৈরি করা হলে বহু প্রবাসী বিনিয়োগে এগিয়ে আসবেন।

বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে প্রবাসীদের কী ধরনের বাধা রয়েছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিনিয়োগ করলে সেই টাকা ফেরত পাবে কি-না এ বিষয়ে সরকার কিংবা বাংলাদেশ ব্যাংক প্রবাসীদের এখনও আশ্বস্ত করতে পারেনি। অর্থ প্রতারণা, জালিয়াতি, সরকারি নীতিমালার অভাব, রাজনৈতিক অস্থিরতা, অর্থনৈতিক অস্থিতিশীলতা এসব কারণে প্রবাসীরা তাদের অলস অর্থ বিনিয়োগে এগিয়ে আসছে না।

তিনি বলেন, সরকার যদি উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করে তাহলে প্রবাসী বিনিয়োগে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ৩-৪ বছরের মধ্যে ১০ থেকে ১২ শতাংশে পৌঁছানো সম্ভব হবে।

বাংলাদেশের কোন ধরনের পণ্য বিদেশে রপ্তানীর ভালো সুযোগ রয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে সংগঠনের সভাপতি প্রকৌশলী ড. জয়নুল আবেদীন বলেন, দেশের বিদ্যমান কোম্পানি ও সরকার উদ্যোগ নিলে বিশেষ করে মেডিসিন এবং শিপিং ক্ষেত্রে বিদেশে বাংলাদেশের ব্যবসার প্রসার ঘটানো সম্ভব হবে।

ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে ডেনমার্ক, সুইডেন ও নরওয়ে এসব পণ্যের চাহিদা বেশি রয়েছে বলে জানান তিনি।

সরকার এগিয়ে আসলে ইউরোপে বাংলাদেশের শ্রমবাজার প্রসার করতে আয়েবা সব ধরনের সহায়তা করবে বলে জানান তিনি।

সংগঠনের প্রচার সম্পাদক এম এ রব মিন্টু বলেন, বিদেশ থেকে প্রবাসীরা লাখ লাখ বিলিয়ন রেমিটেন্স পাঠায়। কিন্তু তারপরও দেশের অর্থনীতির চাকা ঘুরছে না কেন এমন প্রশ্ন হাজারো প্রবাসীদের মধ্যে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এ সময় সংগঠনের বিষয় বস্তু তুলে ধরে এর নেতার বলেন, প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে সংগঠনটি বেশ কয়েকটি প্রবাসী জনস্বার্থমূলক কাজে অংশ নিয়েছে।

তবে সংগঠনের নেতারা বেশ আক্ষেপ করে বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও এখনও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী প্রায় এক কোটি প্রবাসীদের ভোটাধিকার নিশ্চিত করা হয়নি।

এ সময় সংগঠনের পক্ষ থেকে বেশ কয়েকটি দাবি তোলা হয়। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- জনসংখ্যার আনুপাতিক হারে প্রবাসীদের জন্য সংসদে আসন নিশ্চিত করা, তাদের সন্তানদেরকে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির সুযোগ করে দেওয়া এবং প্রবাসীদের জন্য তাদের মালিকানায় একটি ব্যাংক স্থাপন করা।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১৪অক্টোবর ইউরোপীয় প্রবাসীদের সংগঠন আয়েবের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। এর পর থেকে প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যা নিরসনে কাজ করে আসছে এটি।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন, সংগঠনের সহ-সভাপতি ফখরুল আলম সেলিম, রানা তাসলিম উদ্দিন, অ্যাড. তানবীর সিদ্দিকী, শিক্ষা সম্পাদক নুরুল করিম, আজহারুল হক, কামাল মিয়া, নুরুল হুদা, মনিরুজ্জামান ‍লিটন প্রমুখ।

জেইউ/ এএআর