সরকারের মিথ্যার ঝুলি অনেক বড় ডাউনলোড করা যাচ্ছে না: হান্নান শাহ

0
31
hannan shah

hannan shahসরকারের মিথ্যার ঝুলি এত বড় হয়েছে যে, এখন আর তা ডাউনলোড করা যাচ্ছে না বলে জানালেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জে. (অব.) আ স ম হান্নান শাহ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে সাউথ এশিয়া ফর পিস এন্ড প্রসপারিটি সোসাইটির উদ্যোগে আয়োজিত বিডিআর মাটিনি এন্ড আওয়ার ফ্রিডম: ইউথ পারসেপশন শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সত্যকে মিথ্যা আর মিথ্যাকে সত্য বলতে সরকার এখন ব্যস্ত উল্লেখ করে হান্নান শাহ বলেন, সরকার এখন এত বেশি মিথ্যাচার করছে যে আগের মিথ্যাচারগুলো মানুষ ভুলতে বসেছে।

তিনি বলেন, নতুন মিথ্যাচারের চাপে বিসমিল্লা, হলমার্ক, ডেসটিনি আর কালো বিড়াল এসব কিছু মানুষ ভুলতে বসেছেন।

বিডিআর বিদ্রোহ সম্পর্কে তিনি বলেন, যে কারো প্ররোচনায় বিডিআর বিদ্রোহ হয়েছিল এই বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। এটা একটা পরিকল্পিত হত্যাকান্ড।

প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করে হানান শাহ বলেন, বিডিআর বিদ্রোহের সময় প্রধানমন্ত্রী তিন বাহিনীর প্রধানকে নিয়ে বৈঠক করেছিল, তিনি সেদিন একবারের জন্যও জানতে চায়নি পিলখানায় সেনা অফিসারগণ কি অবস্থায় রয়েছে।

পিলখানার বিদ্রোহের তদন্ন্তের বিষয়ে সাবেক এই সেনা কর্মকর্তা বলেন, সেনাবাহিনীরাও তদন্ত করতে গিয়ে একটা পর‌্যায়ে থেমে গেছেন। তারা তাদের প্রতিবেদনে বলেছেন এর বেশি আর তদন্ত করা সম্ভব নয়। অথচ তদন্তের বিষয়বস্তু আরও অনেক বাকি ছিল। কিন্তু কেন তারা থেমে প্রতিবেদন করতে গিয়ে থেমে গেলেন।

এ সময় ভাষা শহীদ জব্বার, বরকত ও রফিক এসব ভাষা শহীদরা কোথায় কিভাবে মারা গেছেন সে ইতিহাসগুলো জাতীর সামনে তুলে ধরার আহ্বান জানান তিনি।

নতুন প্রযম্নকে ইতিহাস ঐতিহ্য সম্পর্কে জানাতেও সরকার সেমিনার বা আলোচনা সভা করতে দেয় না অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, এর কুফল সরকারই পাবে।

পিলখানা হত্যাকান্ডে যারা প্রকৃত দোষী তাদের সনাক্ত করে বিচারের আওতায় আনার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান বিএনপির এই নেতা।

এন এম সাজ্জাদুল হকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, মেজর জে. (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহীম বীর প্রতীক, ব্রিগেডিয়ার জে. (অব.) মুহাম্মদ সাখাওয়াত হুসাইন, লে. কর্ণেল আনোয়ার হোসাইন, ঢাবির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এমাজ উদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, লে. কর্ণেল (অব.) আশরাফ আলদিন প্রমুখ।

জেইউ