ওষুধ শিল্পে বিনিয়োগে আগ্রহী বেলারুশ

0
30
amu
শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ( ফাইল ছবি)

amuবাংলাদেশে ওষুধ শিল্পে যৌথ বিনিয়োগে বেলারুশের উদ্যোক্তারা আগ্রহী বলে শিল্পমন্ত্রীকে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত বেলারুশের রাষ্ট্রদূত ভিটালি এ. প্রিমা। এদিকে বেলারুশের উদ্যোক্তারা বাংলাদেশে বেসরকারি পর্যায়ে ওষুধ শিল্পখাতে বিনিয়োগ করতে পারে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

রাজধানীর মতিঝিলের শিল্প মন্ত্রণালয় ভবনে বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় অনুষ্টিত বেলারুশের রাষ্ট্রদূত ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সাথে বৈঠককালে এ আগ্রহের কথা জানান। এর পরেই শিল্পমন্ত্রী বেলারুশের রাষ্ট্রদূতকে বিনিয়োগের আশ্বাস দেন।

এদিকে বাংলাদেশে যৌথ বিনিয়োগে প্রস্তাবিত ট্রাক্টর সংযোজন কারখানা মিন্সক ট্রাকটর ওয়ার্কস  এর কাজ বাস্তবায়নে শিল্পমন্ত্রীর সহায়তা কামনা করেছেন বেলারুম রাষ্ট্রদূত।

বৈঠকে শিল্পখাতে দ্বিপাক্ষিক সহায়তার বিভিন্ন দিক নিয়েও আলোচনা হয়। এসময় ভিটালি জানান, তার দেশের শতকরা ৬০ ভাগ ওষুধের চাহিদা আমদানি করে মেটানো হয়।

তিনি জানান তাদের দেশের ওষুধের এই চাহিদার বেশির ভাগই বাংলাদেশ থেকে আমদানি করতে পারে তারা। তবে তিনি  মনে করেন ওষুধ শিল্পে যৌথ বিনিয়োগের মাধ্যমে দুই দেশই লাভবান হতে পারে।

এছাড়া অটোমোবাইল ও  আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতি উৎপাদনখাতে বিনিয়োগের বিষয়টির দিকে বিশেষ নজর দেওয়া প্রয়োজন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বৈঠকে শিল্পমন্ত্রী বলেন, আধুনিক কৃষিখাত গড়ে তুলতে সরকার প্রযুক্তিনির্ভর উৎপাদন ব্যবস্থার ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। বাংলাদেশে ব্যবহার উপযোগি ট্রাক্টরসহ কৃষি যন্ত্রপাতি উৎপাদন শিল্পে যৌথ বিনিয়োগের প্রতি সরকারের ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে।

বেলারুশের সাথে যৌথ বিনিয়োগে ট্রাক্টর সংযোজন প্রকল্প বাস্তবায়নে বাংলাদেশ ইস্পাত ও প্রকৌশল কর্পোরেশন (বিএসইসি) প্রস্তুত রয়েছে বলেও  উল্লেখ করেন তিনি।

বেলারুশে বাংলাদেশি পণ্যের রপ্তানি বাড়াতে শুল্কমুক্ত সুবিধা বৃদ্ধির তাগিদ দিয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশি উদ্যোক্তারা বর্তমানে বিশ্বমানের ওষুধ উৎপাদন করে থাকে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ থেকে ৮০টিরও বেশি দেশে ওষুধ রপ্তানি হচ্ছে।

এমআর