সাবেক প্রতিমন্ত্রী মান্নান খানকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

0
77
সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী আব্দুল মান্নান খান

সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী আব্দুল মান্নান খানঅবৈধ সম্পদ অর্জন ও হলফনামায় দেওয়া সম্পদ বিররণীতে অস্বাভাবিক বৃদ্ধির বিষয়ে সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আব্দুল মান্নান খানকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে আটটায় রাজধানীর সেগুন বাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে কমিশনের উপ-পরিচালক মো.নাসির উদ্দিন তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন। জিজ্ঞাসাবাদ চলবে দুপুর পর্যন্ত। এর আগে দুদক তাকে গত  ২০ ফেব্রুয়ারী  ডাকলেও অসুস্থ্যতার কারণ দেখিয়ে তখন হাজির হননি আওয়ামী লীগের এ প্রভাবশালী নেতা।

দুদক সূত্র জানায়, ঢাকা ১ আসনের সাবেক সাংসদ ও মহানগর আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতা এডভোকেট আব্দুল মান্নান। তিনি বিগত মহাজোট সরকারের গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী থাকাবস্থায় বিপুল সম্পত্তির মালিক হয়েছেন। পাঁচ বছর আগে তার সাকুল্যে ১০ লাখ ৩৩ হাজার টাকার সম্পত্তি ছিল। গত পাঁচ বছরের ব্যবধানে সেটা হয়েছে ১১ কোটি তিন লাখ টাকা। আগে তার বার্ষিক আয় ছিল তিন লাখ ৮৫ হাজার টাকা। সেই আয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে বছরে তিন কোটি ২৮ লাখ টাকায়। পাঁচ বছরের মন্ত্রিত্বকালে তার সম্পত্তি ১০৭ গুণ বেড়েছে। এছাড়াও তার অপ্রদর্শিত অনেক সম্পত্তিও রয়েছে বলে দুদক সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, হলফনামায় দেওয়া সম্পদ বিবরনীতে সম্পদের অস্বাভাবিক বৃদ্ধির বিষয়টি জানতে ও হলফনামায় উল্লেখ বর্হিভূত কোন সম্পত্তি আছে কি-না সে বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

এর আগে গত ১২ জানুয়ারি সাবেক এই প্রতিমন্ত্রীসহ ক্ষমতাসীন সরকারের সাবেক সাত মন্ত্রী এমপির হলফনামায় দেওয়া সম্পদ বৃদ্ধি ও অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানে সাত কর্মকর্তা নিয়োগ দেয় কমিশন। বিষয়টিতে ইতিমধ্যে সাবেক স্বাস্থ্য মন্ত্রী ও বর্তমান সংসদ সদস্য আ ফ ম রুহুল হক, পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও বর্তমান সংসদ সদস্য মাহবুবুর রহমান ও সাংসদ আব্দুর রহমান বদিকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুদক।

এই্উ নয়ন