ভৈরবে প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি

শনিবার ভোর রাতে ভৈরবের চণ্ডিবের কান্দাপাড়া এলাকায় এক সৌদী প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও একই রাতে  ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বাসস্ট্যান্ড এলাকার আরো তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় প্রায় ৭ লাখ টাকার মালামাল লুট হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্তদের দাবি।

ভৈরবে গত ২ ডিসেম্বর সোমবার থেকে এই নিয়ে আটবার ডাকাতি ও তিন চুরির ঘটনায় প্রায় অর্ধকোটি টাকার মালামাল লুটের ঘটনা ঘটলেও, পুলিশ প্রশাসন ওইসব ঘটনায় জড়িত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। উদ্ধার হয়নি খোয়া যাওয়া মালামাল। প্রতি রাতের এইসব ঘটনায় চরম আতংক বিরাজ করছে এলাকাবাসীর মনে।

জানা যায়, আজ শনিবার ভোর ৩টার দিকে শহরের চণ্ডিবের কান্দাপাড়া এলাকার সৌদী আরব প্রবাসী জাকির হোসেনের বাড়িতে ৮/১০ জনের একটি ডাকাতদল হানা দেয়। এ সময় দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে বাড়ির লোকজনদের জিম্মি করে ছয় ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ৩০ হাজার টাকা, একটি ল্যাপটপ, মোবাইলসেটসহ প্রায় ছয় লাখ টাকার মূল্যবান আসবাবপত্র লুটে নেয় ডাকাতদল।

একই দিন ভোর ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরব বাসস্ট্যান্ড এলাকার আল-জাবের কম্পিউটার সেন্টার, জান্নাত ডিপার্টমেন্টাল স্টোর ও অর্পিতা টেলিকম নামের তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনা ঘটে। চোরদল প্রতিষ্ঠানগুলির সাটার ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে নগদ টাকা, কম্পিউটার, মোবাইলসেটসহ প্রায় চার লাখ টাকার মালামাল লুটে নিয়েছে।

এর আগে গত ২ ডিসেম্বর সোমবার ভোরে শহরের রানীর বাজার এলাকার ব্যবসায়ী কুদ্দুস মিয়া, জিল্লুর রহমান ও উপজেলার শিমূলকান্দি ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামের ছিদ্দিক মিয়া, হাজী জজ মিয়া, আফিল উদ্দিন ও হারুন মিয়ার বাড়িতে এবং গতকাল শুক্রবার ভোর রাতে শহরের কমলপুর পঞ্চবটি এলাকার ব্যবসায়ী আহসানুল হক দুলালের বাড়িতে হানা দিয়ে ৩৫ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ৩ লাখ টাকা, ৭টি মোবাইলসেটসহ প্রায় ২৫ লাখ টাকার মালামাল লুটে নেয় একদল ডাকাত।