শেয়ার বাইব্যাক কী?

0
102
share buyback, apple, walmartশেয়ার বাইব্যাক, ওয়ালমার্ট, অ্যাপল

share buyback, apple, walmartশেয়ার বাইব্যাক, ওয়ালমার্ট, অ্যাপলশেয়ার বাইব্যাক (share buyback) হচ্ছে ইস্যুয়ার কোম্পানি কর্তৃক বাজার থেকে নিজ কোম্পানির শেয়ার কিনে নেওয়া। পৃথিবীর অনেক দেশেই শেয়ার বাইব্যাক করার বিধান রয়েছে।

নানা কারণে একটি কোম্পানি বাজার থেকে ইস্যুকৃত শেয়ারের একাংশ তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে। কোন কোম্পানির শেয়ারের বাজার মূল্য একটি নির্দিষ্ট সীমার নিচে নেমে গেলে কোম্পানিটি আগ্রহী শেয়ারহোল্ডার বা বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে নির্ধারিত মূল্যে সে শেয়ার কিনে নিতে পারে; যাতে বাজারে শেয়ারটির যোগান কমে যায়। এতে শেয়ারের দাম আবার বেড়ে যাবার সম্ভাবনা তৈরি হয়।

এছাড়া কোম্পানির ব্যবসা সম্প্রসারণের সুযোগ ও সম্ভাবনা কমে এলেও এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারে কর্তৃপক্ষ।এমন ক্ষেত্রে কোম্পানি বাজার থেকে শেয়ার তুলে নিয়ে তার পরিশোধিত মূলধন কমিয়ে ফেলে। এভাবে মূলধন ও শেয়ার সংখ্যা কমে এলে মুনাফার প্রবৃদ্ধি না হওয়া সত্ত্বেও শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস বেড়ে যায়।তাতে কোম্পানির লভ্যাংশ দেওয়ার সামর্থ্যও বাড়ে।

পৃথিবীতে শেয়ার বাইব্যাক করার মত ঘটনা অহরহই ঘটছে। গত বছরের মাঝামাঝি বিশ্বের অন্যতম বড় চেইন স্টোর ওয়ালমার্ট বাজার থেকে প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকার শেয়ার তুলে নেয় তথা বাইব্যাক করে। চলতি ২০১৩ সালের গোড়ার দিকে অ্যাপল ইনকরপোরেশন ১৪ বিলিয়ান ডলার মূল্যে তার ২ কোটি ৫৬ লাখ শেয়ার বাইব্যাক করে।

শেয়ার বাইব্যাকের ব্যবস্থা বাংলাদেশে প্রচলিত নয়।কোম্পানি আইন, ১৯৯৪ এ শেয়ার বাইব্যাক করার কোনো সুযোগ নেই।২০১০ সালে পুঁজিবাজারে বড় ধসের পর বেশ কয়েকটি কোম্পানি মূল্য পতন ঠেকাতে বাজার থেকে শেয়ার কিনে নেওয়ার ঘোষণা দেয়। কিন্তু কোম্পানি আইনে এর কোনো বিধান না থাকায় তারা তা পারেনি।

তবে কোম্পানি আইন, ১৯৯৪ এর প্রস্তাবিত সংশোধনীতে শেয়ার বাইব্যাক করার সুযোগ রাখার কথা ভাবা হচ্ছে।