তারকাদের লেখা বই

0
144
book fair

book fair বই মেলাচলচ্চিত্র শিল্পীরা যে শুধু অভিনয় করবেন, লেখা-লেখি করবেননা এমন কোন কথা নাই। যারা সব সময় ব্যস্ত থাকেন অভিনয়, স্যুটিং সহ নানা বিষয় নিয়ে। তারা শত ব্যস্ততার মধ্যেও করে যাচ্ছেন তাদের সাহিত্য কর্ম। মানুষ চাইলে যে কিছু করতে পারে তার প্রমাণ এসব তারকারা। প্রতিবারের মতো এবারও তারকা শিল্পীদের বই এসেছে জাতীয় গ্রন্থমেলায়। যেসব তারকা নিজ পেশার পাশাপাশি সাহিত্যচর্চা করছেন তাদের সবারই বই প্রকাশ হয়েছে এবার।

এবারের বই মেলায় অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন বাংলাদেশের সফল অভিনেতা, প্রযোজক ও পরিচালক অনন্ত জলিল। তার লেখা একটি উপন্যাস নিঃস্বার্থ ভালবাসা বইমেলায় প্রকাশ করেছে শব্দশিল্প প্রকাশনি। এছাড়া এ প্রকাশনা থেকে তারকা জগতের আবুল হায়াত, বিপাশা হায়াত, তৌকির আহমেদ, বিন্দাবন দাস, রুমানা রশিদ ঈশিতা, আজিজুল হাকিম, বিদ্যা সিনহা মিম ও নাট্যকার-নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী প্রমুখের বই।

অভিনয় শিল্পী ও তারকাদের যে বইগুলো বের হয়েছে সে গুলো হল অনন্ত জলিলের নিঃস্বার্থ ভালবাসা, আবুল হায়াতের  পলাতক, মঞ্চনাটক, শেষপত্র এবং গল্প মালঞ্চ একগুচ্ছ নিপা বনের জোকস, অভিমান, বিপাশা হায়াতের ঘুম ভাঙা মানুষের গল্প, আলী যাকেরের ধর নির্ভয় গান, আজিজুল হাকিমের গল্প নয়-কল্প নয়, চয়নিকা চৌধুরীর মায়াঘর, বৃন্দাবন দাসের কাঁদতে মানা, রুমানা রশিদ ঈশিতার স্বপ্ন এবং স্বপ্নীল, নীরবে, বিদ্যা সিনহা মিমের শ্রাবন বৃষ্টিতে ভেজা, পূর্ণতা, তৌকির আহমেদের ইচ্ছা মৃত্যু,মোস্তফা কামাল রাজের লস্ট এন্ড ফনিন্ড বই প্রকাশিত হয়েছে।

শব্দশিল্প প্রকাশনির প্রোপাইটর মো. শরিফুর রহমান বলেন, সবাই গতানুগতিক ধারার লেখকদের বই বের করে। আমি সেখানে একটু ভিন্নমাত্রা যোগ করলাম। আমার স্টল এখন তারকাদের স্টল নামেই খ্যাত।

পাঠকদের ভালই সাড়া পাচ্ছি। এবারে মেলায় অনন্ত জলিলের নিঃস্বার্থ ভালবাসা, চয়নিকা চৌধুরীর মায়াঘর ভাল চলে বলেও জানান তিনি।

আবুল হায়াত তার  বই সর্ম্পকে বলেন, আমার এ বছর “একগুচ্ছ নিপাবনের জোকস” বইটি মেলায় এসেছে। বইটি হল একটি জোকসের সংকলন। আমি কোন সাহিত্যিক নই। তারপরও চেষ্টা করছি কোন কিছু লেখার। পাঠকের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, বেশি বেশি বই পড়া উচিৎ। বই মানুষকে অন্ধকার থেকে আলোর মধ্য নিয়ে আসে।

চিত্র নাট্য পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী বলেন, আমার মায়াঘর বইটি অনেক ভাল গল্পের বই। এখানে মানুষের মধ্য মায়ার যে বাঁধন থাকে তা তুলে ধরেছি।

পাঠকরা এখন খুব বেশি ফেসবুক ব্যবহার করে তাদের সর্ম্পকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ফেসবুক ব্যবহার করে সময় পার না করে ভাল একটা বই পড়লে জ্ঞানের ভান্ডার সমৃদ্ধ হয়।

অন্যদিকে মুক্তদেশ প্রকাশনা থেকে প্রকাশিত হয়েছে বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী মুস্তাফা জামান আব্বাসীর পাঁচটি বই। বইগুলোর মধ্যে রয়েছে সখী নীরবে থাকিস, ভালোবাসি আজও কালও, আমার মায়ের মুখ, আব্বাস উদ্দীনের গান এবং ইমামের শুভদৃষ্টি।

মুস্তফা জামান আব্বাসী বলেন, সংগীতচর্চার মতোই মনের খোরাক নিবারণে লেখালেখি করি। আশা করি, এবারের বইগুলোও পাঠকদের দৃষ্টি কাড়বে।

হানিফ সংকেত অনেক আগে থেকেই লেখালেখির সঙ্গে যুক্ত। লেখেন নাটক, প্রবন্ধ, কলাম- আরো অনেক কিছু। তাঁর লেখা বই আগেও এসেছে বইমেলায়। তবে এবারের বইমেলায় তার এক সঙ্গে দুটি বই বের হচ্ছে। প্রবন্ধগ্রন্থ ‘নিয়মিত অনিয়ম’। গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে অনন্যা প্রকাশনী।

হানিফ সংকেত তার বই সর্ম্পকে জানান, এ বইয়ের লেখাগুলো মূলত একটি সংকলন। আমার লেখা কলাম বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে, সেগুলো একসঙ্গে করেই বইটি বের করা। অপ্রকাশিত লেখাও এখানে কিছু আছে।

তিনি জানান, সমাজ, রাজনীতি, অর্থনীতি বিভিন্ন ক্ষেত্রের নানা অসংগতি এ বইয়ের প্রবন্ধগুলোর উপজীব্য। এবারের মেলায় হানিফ সংকেতের অন্য একটি বই ‘কষ্ট’ বের হচ্ছে একই প্রকাশনী থেকে। এটি উপন্যাস। উপন্যাসটি ১৯৯৩ সালে ‘আনন্দ বিচিত্রা’ পত্রিকায় ছাপা হয়

শিল্পী ফকির আলমগীরের তার চারটি বই বের হয়েছে এবারের বইমেলায়। বইগুলো হলো স্মরণীয় বরণীয়, দেশ দেশান্তর, স্মৃতি আলাপনে, মুক্তিযুদ্ধ এবং মুক্তিযুদ্ধের বন্ধুরা।

এসএস/সাকি