বিডিআর বিদ্রোহের সঠিক তদন্ত না হলে বড় বিপর্যয়: দেবপ্রিয়

0
74

deboprioবিডিআর বিদ্রোহের ঘটনাসহ বড় বড় জাতীয় ইস্যুগুলোর সঠিক তদন্ত করে এর সুষ্ঠু বিচার না করলে জাতীয় জীবনে বড় ধরনের বিপর্যয় ঘটতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য।

সোমবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘শহীদ পরিবারবর্গ ও দেশ উই আর কনসার্নড’ এর উদ্যোগে আয়োজিত পিলখানা শহীদদের স্মরণে এক আলোচনা সভায় তিনি এমন মন্তব্য করেন।

ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায় সরকারের তদন্ত কমিটির তদন্তের ১৯ নং ধারার অনুবাদ করে বেশ কয়েকটি বিষয় তুলে ধরে বলেন, সরকারের নিয়োগ দেওয়া কমিটি ১৯ নং ধারায় উল্লেখ করেছেন যে, এ বিদ্রোহের মূলকারণ সন্দেহাতীতভাবে উদঘাটন করা সম্ভব হয়নি। তবে, এর সঠিক তদন্তের জন্য আরও বিশ্লেষণ ও সময়ের প্রয়োজন রয়েছে।

এই ধারায় আরও বলা হয়েছে যে, সেনাদের উপর বিডিআরের নেতিবাচক ক্ষোভ। সামান্য ডাল-ভাত এসব সামান্য দাবির কারণে এত বড় ঘটনা ঘটতে পারে না। তাই এই ধারাটি বিশ্লেষণ করে এর সঠিক ঘটনা জাতির সামনে তুলে ধরা সরকারের উচিত বলে মনে করেন তিনি।

দেব প্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, শুধু যাদুঘর বা পাঠ্যবইতে শহীদ সেনাদের ইতিহাস তুলে ধরলেই চলবে না। রাষ্ট্রের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় তাদের এই মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ডের বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে হবে। এই সময় তিনি সেনা শহীদদের মরণোত্তর সম্মাননা দেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

বিডিআর বিদ্রোহে শহীদ সেনাদের স্মরণে সেনা শহীদ মিনার, ২৫ ও ২৬মে ফেব্রুয়ারিকে সেনা শহীদ দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে সরকারি ছুটি ঘোষণা করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শহীদ পরিবারে সন্তানেরা। এছাড়া, পরবর্তী প্রজন্মের জন্য পাঠ্যবইতে সেনাদের হতাহতের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার আহ্বানও জানান তারা।

যে ৫৭ জন সেনা অফিসার শহীদ হয়েছেন তাদের স্মৃতির স্মরণে একটি সেনা শহীদ মিনার নির্মাণ ও সরকারিভাবে শহীদের গেজেট প্রকাশ করার দাবিও জানিয়েছেন শহীদ পরিবারের সন্তানেরা।

প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনাক হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, শহীদ পরিবারের পক্ষে শহীদ কুদরত-ই এলাহির বাবা হাবীবুর রহমান, শহীদ কর্ণেল মুজিবের ভাই মেজর (অব:) এনাম, কর্ণেল মুজিবুল হকের স্ত্রী মেহেরীন ফেরদৌস, কর্ণেল লুৎফুর রহমান খানের মেয়ে ফাবলিহা বুশরা প্রমুখ।

জেইউ