সিইটিপির কাজ শুরু করতে শিল্পমন্ত্রীর আলটিমেটাম

0
34
Amir_hossain_amu

আমির হোসেন আমুচামড়া শিল্পে ৭ দিনের মধ্যে কেন্দ্রীয় পর্যায়ে বর্জ্য পরিশোধনাগার (সিইটিপি)’র কাজ শুরু করতে নির্দেশ দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। আর কাজ শুরু না করা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ার করেন তিনি।

সোমবার বিকেলে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ ফিনিশড লেদার, লেদারগুডস অ্যান্ড ফুটওয়ার এক্সপোর্টারস অ্যাসোসিয়েশন (বিএফএলএলএফইএ) সঙ্গে ‘ঢাকা চামড়া শিল্পনগরী, সাভার প্রকল্পের আওতায় ঢাকার হাজারীবাগে অবস্থিত ট্যানারিগুলো সাভারে স্থানান্তরসহ প্রকল্পের সার্বিক বাস্তবায়ন অগ্রগতি সম্পর্কিত’ সভা শেষে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বিএফএলএলএফইএ এর চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আবু তাহের, বিএফএরএলএফইএ’র সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদিন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এম আবু ইউসুফ, শিল্প, পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের সচিবদ্বয়সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মিল্পমন্ত্রী বলেন, চামড়া শিল্পের উন্নয়নে (সিইপিটি)’র কাজ এক সপ্তাহের মধ্যে শুরু করতে হবে। যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে অবিলম্বে তা বাস্তবায়ন করতে হবে। আর কোনোক্রমে যদি বিলম্ব হয়। তবে যার অবস্থান থেকে বিলম্ব হবে তাকে প্রত্যাহার করা হবে বলেও হুশিয়ার করেন তিনি।

তিনি ট্যানারি মালিকদের শিগগিরই কারখানা স্থানান্তর করার নির্দেশ দেন। তা নাহলে চামড়া ভারতে পাচার হয়ে যাবে বলে মনে করেন তিনি।

তিনি বলেন, এমনিতেই পোশাক খাতে অস্থির পরিবেশ বিরাজ করছে। আবার চামড়া শিল্পে এই অস্থিরতা নেমে আসুক তা কাম্য নয় বলে জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে পরিবেশ ও বনমন্ত্রী বলেন, এটা আমাদের বাঁচা-মরার লড়াই। শিল্প বাঁচানোর আগে মানুষকে রক্ষা করতে হবে বলে মনে করেন তিনি।

জানা যায়, ২০১৩ সালের ১৭ সেপ্টম্বর কেন্দ্রীয় বর্জ্য পরিশোধনাগার (সিইটিপি)’র কাজের মেয়াদ প্রথম পর্যায়ে শেষ হয়েছিলো। তবে কাজ শেষ না হওয়ায় আবার নতুন করে দ্বিতীয় পর্যায়ে চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হয়। তবে এই সময়েও কাজ শেষ হয়নি। মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার কারণে কাজ বন্ধ হয়ে যায়। তাই নতুন করে কাজ শুরু করার জন্য শিল্পমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আল্টিমেটাম দেওয়া হলো।

হাজারীবাগ হতে চামড়াশিল্পকে স্থানান্তর করার উদ্দেশ্যে ২০১৩ সালের ১০ অক্টোবর একটি ত্রিপক্ষীয় সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। শর্তানুযায়ী চামড়া নগরীতে (সিইটিপি)নির্মাণ, ক্ষতিপূরণ প্রদান ও কারখানা স্থানান্তর কার্যক্রম সমানভাবে চলার কথা ছিলো।

তবে এই নির্মাণ কাজ মন্থর গতিতে চলতে থাকে। প্রকল্প এলাকার অবকাঠামোগত নির্মাণ কাজ প্রায় সমাপ্ত হলেও সিইপিটির কাজ প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে বলে জানা যায়।