আরএমপির রেশন সরবরাহর দরপত্র কারচুপির অভিযোগ

0
34
রাজশাহী মেট্টপলিটন পুলিশ

রাজশাহী মেট্টপলিটন পুলিশরাজশাহী মহানগর পুলিশ (আরএমপি) সদর দপ্তরে তেল, ডাল ও চাল, সরবরাহের দরপত্র আবার পছন্দের ঠিকাদারদের কাছে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। একই অভিযোগ গত বছর আগস্ট মাসে উঠেছিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঠিকাদাররা জানান, সম্প্রতি আরএমপির রেশন সরবরাহের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে দরপত্র আহ্বান করা হয়। রোববার দরপত্র বিক্রির শেষ দিন ছিল। ঠিকাদাররা পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে গিয়ে দেখেন, প্রায় ৭০ লাখ টাকার এ কাজের দরপত্র পছন্দের ঠিকাদার ছাড়া অন্য কারো কাছে বিক্রি করা হচ্ছে না।

তারা আরও জনান, দরপত্র কিনতে চাইলেও হেড মোহরার শাহ আলমের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, শিডিউল বিক্রি হয়ে গেছে। এর ফলে অধিকাংশ ঠিকাদাররা দরপত্র কিনতে গিয়েও খালি হাতে ফিরে আসেন।

ঠিকাদাররা জানান, প্রতি বছর অন্তত ২৫-৩০ জন ঠিকাদার অংশ নেন। অথচ গত বছর থেকে শুধু পছন্দের ঠিকাদারের মাঝে শিডিউল বিক্রি হচ্ছে। এ নিয়ে গত বছরের গত ২১ আগস্ট আরএমপি তৎকালীন কমিশনার এসএম মনির-উজ-জামানের কাছে লিখিত অভিযোগও করেছিলেন ঠিকাদাররা।

আরএমপির হেড মোহরার শাহ আলম বলেন, দরপত্র বিক্রির দায়িত্বে আমি ছিলাম না। অন্য একজনের এ দায়িত্ব ছিল। কাজেই আমার পছন্দের লোকজনের কাছে দরপত্র বিক্রি হয়েছে-এটা ঠিক নয়।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (সদর ) তানভীর হায়দার চৌধূরী বলেন, ‘কেউ শিডিউল কিনতে এসে ঘুরে গেছে এমন অভিযোগ আমি পাইনি। ১২টি সিডিউল বিক্রি হয়েছে। সিডিউল কিনতে এসে ঘুরে গেলে তো আর ১২টি শিডিউল বিক্রি হতো না’।

সাকি/