নরসিংদীতে বিএনপি সমর্থিতদের বাড়িতে হামলা-অগ্নিসংযোগ

0
33
norsinghdi

norsinghdiনরসিংদীতে বিএনপি সমর্থিতদের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার সকালে সদর উপজেলার আলোকবালি ইউনিয়নের মুরাদনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

হামলার শিকার ভুক্তভোগী বিএনপির সমর্থকরা বলেন, হামলা হতে পারে আঁচ করতে পেরে পুলিশকে বিষয়টি জানালেও কার্যকরী কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত বছরের ১০ আগস্ট ঈদুল ফিতরের নামাজে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতা-কর্মীদের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মারামারি হয়। বিষয়টি পরবর্তীতে সামাজিকভাবে মীমাংসাও হয়। সম্প্রতি ওই ঘটনার জের ধরে গত এক সপ্তাহ ধরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন সরকার দিপু ও তার সমর্থকরা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ-সম্পাদক আইয়ুব আলী ও তার সমর্থকদের হুমকি-ধমকি দিলে উত্তেজনা তৈরি হয়।

গতকাল শনিবার বিষয়টি বিএনপির নেতাকর্মীরা মৌখিকভাবে পুলিশকে জানায়। এতে পুলিশ শনিবার দুপুরে মুরাদনগর এলাকায় গিয়ে উল্টো বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ধারালো দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করে নিয়ে আসে। রোববার সকাল ছয়টার দিকে ২০০/২৫০ জনের একদল দুর্বৃত্তরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মুরাদনগর এলাকায় প্রায় অর্ধ-শতাধিক বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। এ সময় হামলাকারীরা বিএনপি নেতা আইয়ুব আলী, আব্দুল আউয়াল, মিয়া চাঁন, খবির উদ্দিন, ফোরকান মিয়া, হেলাল উদ্দিন ও নজরুল ইসলামের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে।

আলোকবালি ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ-সম্পাদক ও সাবেক ইউপি সদস্য আইয়ুব আলী জানান, চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন ও আইনজীবী আসাদুল্লাহর নেতৃত্বে ও পরিকল্পনায় নেকজানপুর, সাতপাড়া, কাজীরকান্দি, বাখননগর, আলোকবালি ও রায়পুরা নিলক্ষা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা আমাদের বাড়িঘরে হামলা চালায়। এতে আমার দুইটি ঘর, আউয়ালের দুইটি ঘরসহ সাতজনের নয়টি ঘর পুড়ে গেছে।

ভুক্তভোগী আব্দুল আউয়াল বলেন, গতকাল শনিবার পুলিশ এসে আমাদের বাড়ি ঘরে তল্লাশি চালিয়ে আমার আত্মরক্ষার জন্য ঘরে থাকা বল্লম, ছুরিসহ দেশীয় অস্ত্রগুলো নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে আলোকবালি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন সরকার দিপুর সাথে মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে এ ব্যাপারে অভিযোগ অস্বীকার করে আইনজীবী আসাদ উল্লাহ বলেন,  আমি নরসিংদীতে থাকি এবিষয়ে আমি কিছুই জানি না।

নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল শনিবার ১৫ জন পুলিশ সদস্য সারাদিন ওই এলাকায় ছিল। তারা ১৫০টি টেটাসহ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করে নিয়ে আসে। আজ সকালে যাওয়ার আগেই প্রতিপক্ষরা হামলা চালায়। এতে কয়েকটি বাড়িঘর পুড়ে গেছে। মূলত পূর্ব শত্রতার জের ধরেই এ ঘটনা ঘটেছে।