আট হাজার কোটি ডলারের মাদক সম্রাট গুজম্যান গ্রেপ্তার

0
38
guzman arrest

guzman arrest বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী চাপু গুজম্যান গ্রেপ্তার হয়েছে। শনিবার ভোরে মেক্সিকোর মাজাতলান সমুদ্র সৈকত থেকে তাকে আটক করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের তাকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মাদক পাচারকারী হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিল। তাকে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য ঘোষণা করা হয়েছিল ৫০ লাখ ডলারের (৪০ কোটি টাকা প্রায়) পুরস্কার। এর বাইরে মেক্সিকো সরকার আরো ২২ লাখ ডলারের (প্রায় ১৬ কোটি টাকা) পুরস্কার ঘোষণা করেছিল।

অত্যন্ত দরিদ্র পরিবার থেকে উঠে আসা প্রায় অশিক্ষিত গুজম্যান মাদক ব্যবসার মাধ্যমে বিপুল বিত্ত-বৈভবের মালিক হয়ে উঠে। বিশ্বখ্যাত ফোর্বস ম্যাগাজিনের হিসাবে ২০১২ সালে গুজম্যানের সম্পদের মূল্য ছিল ১০০ কোটি ডলারের কাছাকাছি (প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকা)। যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া কোকেনের চালানের ৮০ ভাগই তার মাধ্যমে হয় বলে মনে করা হয়। কোকেন, মারিজুয়ানাসহ নানা ধরনের মাদকের কারবার করত তার নিয়ন্ত্রণাধীন সিনোলা কার্টেল।

১২ বছর আগে জেল থেকে পালানোর পর থেকে পুলিশকে নাকানি-চোবানি খাইয়ে যাচ্ছিল ধূর্ত গুজম্যান। তখন থেকেই তাকে আটকের জন্য হন্যে হয়ে খুঁজছিল মেক্সিকোর আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। গোপনে গোপনে তাদের সহায়তা দিচ্ছিল মার্কিন গোয়েন্দারা। কিন্তু অসংখ্যবার হাতের মুঠোর মধ্যে পেয়েও তাকে আটক করতে পারেনি। নানা কৌশলে ঠিকই তাদের চোখ ফাঁকি দিয়ে বেরিয়ে গেছে গুজম্যান। গোয়েন্দারা বলছে, তার ছয়টি সুরক্ষিত বাড়ি আছে। এগুলোর দরজা বুলেটপ্রুফ স্টিলে তৈরি। আর প্রতিটি বাড়িতেই ছিল একাধিক সুড়ঙ্গ। বহুবার গোয়েন্দা সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ তার বাড়ি ঘেরাও করেও আটক করতে পারেনি। পুলিশের অ্যাকশন টের পেয়ে সুড়ঙ্গ দিয়ে সে সহজেই পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

শুধু তাই নয়, নানাভাবে তার কাছে অপদস্ত হয়েছে পুলিশ। বিশেষ করে ২০১২ সালে গুজম্যান মনে করে তার ছেলেকে আটকের খবর ফাঁস হয়ে গেলে মেক্সিকোর পুলিশ বড় ধরনের ভাবমূর্তি সঙ্কটে পড়ে।

গুজম্যানকে গ্রেফতারের সময় বিপুল পরিমাণ মারাত্মক আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এর মধ্য রয়েছে ১ টি রকেট লাঞ্চার, ২ টি গ্রেনেড লাঞ্চার, ৩৬ টি হ্যান্ড গান, ৯৭ টি বড় রাইফেল। এছাড়া তার ১৩ জন সঙ্গী ও ৪৩ টি গাড়ি আটক করা হয়।