ডিজিটালের ফলে গ্রাম পর্যায়ে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার হচ্ছে : শিল্পমন্ত্রী

0
64
Amu
কথা বলছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু

IMG_7741শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, দেশ ডিজিটাল হওয়ার ফলে গ্রাম পর্যায়ে ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার হচ্ছে, শিল্পের বিকাশ ঘটছে, বেড়েছে আধুনিক স্বাস্থ্য সেবার সুযোগ।

রোববার শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ প্রতিষ্ঠান পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তর (ডিপিডিটি) আয়োজিত সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ডিপিডিটি’র স্বয়ংক্রিয় নিবন্ধন সেবাদান কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন তিনি।

ডিপিডিটির রেজিস্ট্রার ও শিল্পমন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব জামাল আব্দুল নাসের চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্পসচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মোস্তাফা জাব্বার।

আমির হোসেন আমু বলেন, ডিজিটালের বদৌলতে উন্নত কৃষি উৎপাদন ব্যবস্থা জোরদার হয়েছে। শিক্ষাখাতে এসেছে গুণগত পরিবর্তন। এছাড়াও সমাজের প্রায় সকল ক্ষেত্রে তথ্য-প্রযুক্তির ছোঁয়া লেগেছে। ফলে তৃণমূল পর্যায়ে নতুন নতুন প্রযুক্তি ও পণ্য উদ্ভাবিত হচ্ছে।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, দিন দিন শিল্পপণ্যের গুণগতমান পরিবর্তনের দিকে যাচ্ছে। এসব উদ্ভাবনের মালিকানা বা স্বত্ব সুরক্ষায় সরকার আইনি কাঠামো জোরদার করেছে।

আমু বলেন, ডিপিডিটি’র স্বয়ংক্রিয় নিবন্ধনের মাধ্যমে দেশের শিল্প ও সেবাখাতে নতুন নতুন উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে অনুপ্রেরণা যোগাবে। এটি প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ প্রজন্মকে সৃষ্টিশীল কর্মকাণ্ডে উৎসাহিত করবে।

মেধা ও সৃষ্টিশীলতায় বাঙালিরা বরাবরই দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে এগিয়ে রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, শিল্প, সাহিত্য, স্থাপত্য, বিজ্ঞান, গবেষণাসহ অনেক খাতে বাঙালির অবদান ঐতিহাসিকভাবে স্বীকৃত। ইতোমধ্যে আমাদের দেশের বিজ্ঞানীরা পাটের জেনোম সিকোয়েন্স উদ্ভাবন করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া ক্ষুদে বিজ্ঞানীরা চালকবিহীন ড্রোন আবিষ্কার করে এর সফল পরীক্ষা চালিয়েছে। উপযুক্ত পরিবেশ পেলে আমাদের সন্তানেরাও উদ্ভাবনের মাধ্যমে বিশ্ব জয় করে নিতে পারবে মনে করেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, মেধাসম্পদের মালিকানা সুরক্ষা বিশ্বব্যাপী একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। পৃথিবীর প্রায় সকল দেশ নিজেদের উদ্ভাবিত প্রযুক্তি ও যন্ত্রপাতির মালিকানা সুরক্ষায় আইনি কাঠামো জোরদার করেছে। অন্য কেউ যাতে নিজেদের উদ্ভাবনের মালিকানা দাবি করতে না পারে, সে লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক নিয়ম অনুসারে তা নিবন্ধিত করছে। এক্ষেত্রে দ্রুত নিবন্ধনের জন্য তারা অনেক আগেই মেন্যুয়াল রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতির পরিবর্তে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতি চালু করেছে। এর মাধ্যমে পণ্য ও প্রযুক্তির পাইরেসি প্রতিরোধ করা সহজ হচ্ছে। মেধাসম্পদ বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংস্থা ডব্লিওআইপিও এ সহায়তা করেছে বলেন তিনি।

শিল্পমন্ত্রণালয়ের সচিব মঈনউদ্দিন আব্দুল্লাহ বলেন, বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে আমাদের দেশে মেধা সম্পদ সংরক্ষণ শুরু হয়। কিন্তু এর যথাযথ মূল্যায়ন না করায় আমরা তা ধরে রাখতে পারিনি।

তিনি বলেন, এ সম্পদকে কাজে লাগানোর মাধ্যমে আমাদের শিল্প-কলকারখানা অনেক দূর এগিয়ে নেওয়া সম্ভব। এর মাধ্যমে এটি জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখবে বলেও মনে করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থান করতে গিয়ে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মোস্তাফা জাব্বার বলেন, শুধু যন্ত্রাংশ থাকলেই হবে না এটিকে ব্যবহার করার মতো লোকবল প্রয়োজন। তাই তিনি প্রয়োজনীয় লোকবল তৈরির জন্য সরাকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

জিইউ