দেশের ৮ম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ভেন্যুর উদ্বোধন আজ

0
70

cox-bazar‘এ আমাদের স্বপ্ন বাস্তব হওয়ার দিন। এতোদিন আমাদের জেলার অধিকতর উন্নয়নের যে স্বপ্ন দেখেছি তা বাস্তবায়নে আজ থেকে কক্সবাজার আরও এক ধাপ এগিয়ে যাবে। স্টেডিয়ামটি চালু হলে এখানে পর্যটকের সংখ্যা আরও বাড়বে। ক্রিকেটের কল্যানে পর্যটকদের আগমন বাড়বে, প্রসার ঘটবে ব্যবসা-বাণিজ্যের।’

কক্সবাজার জেলায় সমুদ্রের কূল ঘেষে বাংলাদেশের ৮ম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ভেন্যুর উদ্বোধন হচ্ছে আজ। আর উদ্বোধন হতে যাওয়া এই স্টেডিয়াম সম্পর্কে এমন মনে করেন লাবনী পয়েন্টের হোটেল ব্যবসায়ী ও কক্সবাজার হোটেল-মোটেল গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম সিকদার।

প্রায় ২০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত নতুন এ স্টেডিয়ামটি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর এ উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে কক্সবাজারবাসীর দীর্ঘদিনের দাবির অবসান হতে যাচ্ছে।

২০১৪ সালের টি-২০ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে গত ৩ সেপ্টেম্বর উখিয়ার দলীয় জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই স্টেডিয়ামের ভিত্তিফলক উন্মোচন করেন। সে সময় এর নামকরণ করা হয় শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) তত্ত্বাবধানে  এ  স্টেডিয়ামটি প্রায় ৫১ একর জমিতে নির্মিত হয়েছে। স্টেডিয়ামের অন্যান্য খালি জায়গায় দৃষ্টিনন্দন একাডেমিক ভবন, তারকা মানের হোটেল, জিমনেশিয়াম, সুইমিং জোন তৈরি করা হবে। স্থানীয়রা মনে করছেন, এর মাধ্যমে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের কথা সারা বিশ্বে আরও বেশি ছড়িয়ে পড়বে। ফলে পর্যটকদের আগমন বাড়বে, প্রসার ঘটবে ব্যবসা-বাণিজ্যের।

তবে ২০১৪ সালের মহিলা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ম্যাচ এই স্টেডিয়ামে হচ্ছে না। বিসিবি জানিয়েছে, খেলার জন্য শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম পুরোপুরি তৈরি হলেও নতুন পিচে কোনো খেলা হয়নি বলে শেষ মুহূর্তে বিভিন্ন দল বিশ্বকাপ ম্যাচ খেলতে রাজি হয়নি।cox-0020140219204342

বিসিবি জানিয়েছে এখানে শুধু প্রস্তুতি ম্যাচগুলো আয়োজিত হবে। আগামি ৪ মার্চ পাকিস্তান মহিলা দল বাংলাদেশ আসবে। তাদের সঙ্গে পাঁচটি টি-টোয়েন্টি প্রস্তুতি ম্যাচ এখানে অনুষ্ঠিত হবে। ৯ মার্চ আসবে ভারতের মহিলা দল। তাদের সঙ্গেও তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ হবে এই স্টেডিয়ামে।

২০১৩ সালের ১৮ এপ্রিল পর্যটনের এই জমিতে অস্থায়ী ক্রিকেট স্টেডিয়াম তৈরির অনুমোদন পাওয়ার পর ১৯ এপ্রিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান কিউরেটর মোহাম্মদ জাহিদ রেজা বাবুর নেতৃত্বে বিসিবির একটি দল কক্সবাজারে এসে জমি বুঝে নিয়ে ক্রিকেট স্টেডিয়াম নির্মাণ কাজ শুরু করেন।

পর্যটন শহর কক্সবাজারের পর্যটন হোটেল শৈবাল সংলগ্ন গলফ কোর্সের ৫১ একর জমিতে ১৫ হাজার দর্শকের ধারণ ক্ষমতার ভেন্যুটি গড়ে তোলা হয়েছে।