কে বলবে-ভালোবাসা মরে গেছে?

0
119
Edward-Hale-and-his-wife-Floreen-Hale

Edward-Hale-and-his-wife-Floreen-Haleকে বলবে- ভালোবাসা মরে গেছে। সত্যিকারের ভালোবাসা কখনও মরে না। সত্যিই অবাক করার মতো। বলুন তো, ভাগ্যগুণে এমন ভালবাসা কতজনের কপালে জোটে? শুনলেই চোখ কপালে ওঠে যায়। ভালবাসার এত অটুট বন্ধন! সম্প্রতি এক বিরল দৃষ্টান্তের নজির রেখেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ৮০ বছর বয়স পেরিয়ে যাওয়া ফ্লোরেন্স ও এড হেল দম্পতি।

হাসপাতালের বিছানায় তারা উভয়ের মারা গেছেন। মৃত্যুর  ৩৬ ঘণ্টা পেরিয়ে গেছে কিন্ত তাদের ভালবাসা এখনও অটুট রয়েছে।একে অপরের হাত ধরে আছে মৃত্যুর পর থেকেই। খবর মিররের।

প্রতিবেদনে বলা হয়, হেল দম্পতির  বৈবাহিক জীবন ছিল দীর্ঘ ৬০ বছরের। এমনকি মৃত্যুর শেষ প্রহর পর্যন্ত একটুও ক্ষুন্ন হয়নি তাদের বন্ধন। তাইতো শেষ মুহুর্তেও একে অপরের হাত ছাড়েননি। শেষদিকে ৮৩ বছর বয়সে কিডনী রোগে আক্রান্ত হন হেল। তাকে সুস্থ্য করার জন্য হাসপাতালে নেওয়ার সময় স্ত্রীও সঙ্গে যান। এরপর হাসপাতালে গিয়ে তিনিও অসুস্থ হয়ে পড়েন। হেল মারা যাওয়ার আগের দিন ৭ ফেব্রুয়ারি রাতে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ফ্লোরেন্স (৮২) মারা যান। এর পরদিন হেলও মারা যান। কিন্তু মৃত্যুর পরে হাত ধরেছিলেন একে অপরের।

তাদের মেয়ে জানান, আজও পর্যন্ত তাদের মধ্যে ছিল অটুট বন্ধন।মৃত্যুর সময়ে এটাই ছিল তাদের শেষ ফটোচিত্র। এমন চিত্র হয়তো আর কখনও তোলা হবে না। তবে আমাদের কাছে তাদের ভালোবাসা চির দিন বেঁচে থাকবে।

হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানান, ওই দম্পতির শারীরিক অবস্থা ছিল খুবই দুর্বল। সবচেয়ে বড় যে সমস্যা হয়েছে তা হলো হাসপাতালে আসতে তাদের ৪০ মাইল পথ অতিক্রম করতে হয়েছে। আর এতেই গাড়িতে ঝাঁকি লেগে আরও অসুস্থ হয়ে পড়ে তারা।

আমরাও আশা করি এভাবে ভালবাসার অটুট বন্ধনে ছুটে চলুক সবার পথচলা, মৃত্যুর পরেও পরজন্মে খুঁজে পাক ভালোবাসার নতুন বন্ধন।

এস রহমান/