প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ব্যর্থ পুঁজিবাজারে আসা অধিকাংশ কোম্পানি
শনিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » খাত/কোম্পানি পর্যালোচনা

প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ব্যর্থ পুঁজিবাজারে আসা অধিকাংশ কোম্পানি

5 Company logoপ্রতিশ্রুতি রক্ষায় ব্যর্থ হচ্ছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া বেশির ভাগ কোম্পানি। প্রতি মাসেই পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন কোম্পানি। কিন্তু কোম্পানিগুলো বাজারে আসার আগে ভালো মুনাফা দেখালেও তালিকাভুক্তির পরে পাল্টে যায় তাদের চিত্র। অনেক কোম্পানিই দেখা যায় পরে লোকসানে পড়ে। ফলে এধরনের কোম্পানিতে বিনিয়োগ করে সার্বিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় বিনিয়োগকারীরা।

২০১৩ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়েছে অনেক কোম্পানিই। তালিকাভুক্ত হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে থেকে ৫ টি কোম্পানিকে এই প্রতিবেদনের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। কারণ বাজারে আসার আগে ভালো মুনাফা থাকলেও সর্বশেষ প্রান্তিকে তাদের মুনাফা কমেছে।

এ ধরনের কোম্পানির তালিকায় রয়েছে প্রকৌশল খাতের অ্যাপোলো ইস্পাত। কোম্পানিটি ২০১২ সালের জুলাই থেকে ডিসেম্বরে শেয়ার প্রতি আায় বা ইপিএস করেছিল ১ টাকা ১৫ পয়সা। যেখানে তালিকাভুক্তির পরে অর্ধবার্ষিকীতে শেয়ার প্রতি আয় কমে দাঁড়িয়েছে ৭৬ পয়সায়।

ব্যাংক বহিভুত আর্থিক খাতের ফারইস্ট ফাইনান্স কোম্পানি তালিকাভুক্ত হয় ২০১৩ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর। কোম্পানির সর্বশেষ প্রান্তিকের তথ্য মতে, কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি লোকসান করেছে ৭৩ পয়সা। যেখানে আগের বছর একই সময় শেয়ার প্রতি করেছিল ১৮ পয়সা।

একইভাবে খাদ্য ও আনুসঙ্গিক খাতের কোম্পানি গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রো ২০১৩ সালে তালিকাভুক্ত হয়। কোম্পনির সর্বশেষ প্রান্তিকে শেয়ার প্রতি আয় করেছে ৮১ পয়সা। যেখানে আগের বছর একই সময় করেছিল ১ টাকা ৫৭ পয়সা।

২০১৩ সালে তালিকাভুক্ত হওয়া প্রিমিয়ার সিমেন্ট সর্বশেষ প্রান্তিকে শেয়ার প্রতি আয় করেছে ১ টাকা ৭৩ পয়সা। যেখানে আগের বছর একই সময় শেয়ার প্রতি আয় করেছিল ২ টাকা ৪ পয়সা।

এছাড়া বিমা খাতের সানলাইফ ইন্স্যুরেন্স সর্বশেষ প্রান্তিকে মুনাফা করেছে ১৭ কোটি ৯১ লাখ টাকা। যেখানে আগের বছর একই সময় করেছিল ২৮ কোটি ১৭ লাখ টাকা।

তালিকাভুক্তির আগে পরে কোম্পানিগুলোর মুনাফা চিত্রে এ ধরনের ভিন্নতা আসায় ভোগান্তিতে পড়তে হয় বিনিয়োগকারীদের।

এ প্রসঙ্গে বিনিয়োগকারী আনিসুর রহমান অর্থসূচককে বলেন, তালিকাভুক্তির আগে কোম্পানিগুলো শেয়ারের দর বেশি পেতে মুনাফা বাড়িয়ে দেখায়। কিন্তু তালিকাভুক্তির পরে দেখা যায় কোম্পানিগুলোর শুধু মুনাফা কমতে থাকে। বছর শেষে কোম্পানিগুলো ভালো লভ্যাংশ দিতে পারে না।

তিনি বলেন, কোম্পানিগুলো বাজারে আসার আগে নিয়ন্ত্রক সংস্থার উচিৎ আর্থিক প্রতিবেদনগুলো ভালো করে যাচাই-বাছাই করা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, পুঁজিবাজারে অনেক নতুন কোম্পানি তালিকাভুক্ত হচ্ছে। কিন্তু কোম্পানিগুলোর মান নিয়ে আমাদের করার কিছু থাকে না। কারণ বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) অনুমোদন দেয়। তিনি বলেন, আমাদের কাছে যখন কোন কোম্পানি নিয়ে সন্দেহ হয়, তখন আমরা পরিদর্শন করে দেখি।

এসএ/এমআরবি/

এই বিভাগের আরো সংবাদ