‘উন্নয়নের প্রধান চালিকাশক্তি বেসরকারি খাত’

অর্থসূচক ডেস্ক

0
88
AHM Mustafa Kamal
পরিকল্পনামন্ত্রী আ.হ.ম. মুস্তফা কামাল। ছবি সংগৃহীত

বেসরকারি খাতকে দেশের উন্নয়নের প্রধান চালিকা শক্তি বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। রোববার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ইউএনডিপি আয়োজিত বাংলাদেশে এসডিজি বাস্তবায়নে অন্তর্ভুক্তিমূলক বাণিজ্যের গুরুত্ব বিষয়ক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আমাদের উন্নয়নের প্রধান চালিকা শক্তি হচ্ছে বেসরকারি খাত । টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীলতার জন্য প্রয়োজন কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা। সে লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে।

তবে সব লক্ষ্য অর্জনে সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোগ অপরিহার্য বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রায় (এমডিজি) নির্ধারিত ৮টি লক্ষ্যের সবকটি কেবল অর্জনই করেনি বরং লক্ষ্যসমূহ অর্জনের বিরল সফলতা দেখিয়ে ৮টি পুরস্কার অর্জন করেছে। তেমনি টেকসই উন্নয়নে লক্ষ্যমাত্রায় (এসডিজি) নির্ধারিত ১৭টি লক্ষ্যের সবকটি সফলভাবে অর্জনে সরকার বদ্ধপরিকর। এ ব্যাপারে সফলতার জন্য ১৭টি লক্ষ্যের সবকটি অর্জনের সফলতা পুরস্কার অর্জনেও আমরা আশাবাদী।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, যদি বাংলাদেশের শিক্ষা-স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন খাতে অগ্রগতির চলমান ধারা অব্যহত থাকে তবে ২০৩০ সালে বাংলাদেশ হবে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত দেশ।

তিনি বলেন, সরকার গুণগত অবকাঠামো উন্নয়নে বিনিয়োগ বৃদ্ধি করেছে। এছাড়া গ্রাম এবং শহরের মধ্যে ব্যবধান হ্রাস টেকসই উন্নয়নের জন্য খুবই অপরিহার্য। সরকার সে লক্ষ্যে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে।

জলবায়ুর পরিবর্তনজনিত বিরূপ প্রভাব উন্নয়নের অন্যতম প্রধান বাধা হিসেবে উল্লেখ করে মুস্তফা কামাল বলেন, বিশ্বের শিল্পোন্নত ৫টি দেশ শতকরা ৫৫ ভাগ পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর কার্বন নির্গমন করছে। অথচ কার্বন নির্গমনকারী দেশ না হয়েও আমাদেরকে পরিবেশগত বিপর্যয়ের বিরাট ঝুঁকি সামলাতে হবে। এসব নানা ঝুঁকি সত্যেও বাংলাদেশ তার কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনে বদ্ধপরিকর।

আজকের সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা কমিশনের সিনিয়র সদস্য ড. শামসুল আলম, ইউএনডিপি কান্ট্রি ডাইরেক্টর পাইলিন টামেসিস, ইউএনডিপির প্রাইভেট সেক্টর উপদেষ্টা শাবা সোবানি, বেসরকারি সংস্থা বিল্ডের চেয়ারপারসন আসিফ ইব্রাহিম, নেদারল্যান্ড ডেভেলপমেন্টের ইনক্লিউসিভ বিজনেস ডাইরেক্টর জামাল উদ্দিন প্রমুখ।

অর্থসূচক/মাইদুল/