মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে বরাদ্দ ১৮০১ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
115
Fish & River

আসন্ন ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের উন্নয়নে ১ হাজার ৮০১ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ১ হাজার ৪৮৯ কোটি টাকা। এই হিসেবে আগামী অর্থবছরের জন্য এ খাতে ব্যয়  ৩১২ কোটি টাকা বাড়ানো হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের ৪৫তম বাজেট প্রস্তাবনায় এই খাতে বরাদ্দ বাড়ানোর প্রস্তাব পেশ করেন অর্থমন্ত্রী।

গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেটে ১ হাজার ৪৮৯ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হলেও অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে এর ব্যয় বাড়িয়ে ১ হাজার ৫৪৭ কোটি টাকা করা হয়।

আগামী অর্থবছরের জন্য মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে বরাদ্দকৃত ১ হাজার ৮০১ কোটি টাকার মধ্যে উন্নয়ন ব্যয়ের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৮১০ কোটি টাকা। এর পাশাপাশি অনুন্নয় ব্যয়ের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৯৯১ কোটি টাকা।

Fish & River

আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদের টেকসই ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে মালয়েশিয়া সরকারের কারিগরি সহায়তায় অনুসন্ধানী জাহাজের মাধ্যমে ফিশিং গ্রাউন্ড চিহ্নিতকরণপ্রজাতিভিত্তিক মজুদ নিরূপণ ও সর্বোচ্চ সহনশীল মৎস্য আহরণ মাত্রা নির্ণয়ের কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, মৎস্য খাতের উন্নয়নে বর্তমান সরকারের পরিকল্পিত পদক্ষেপগুলোর মধ্যে রয়েছে- মৎস্যজীবীদের নিবন্ধন ও পরিচয়পত্র প্রদানঅভয়াশ্রম স্থাপনসমবায়ভিত্তিক মৎস্য চাষপ্রজনন মৌসুমে জাটকা সংরক্ষণপরিবেশবান্ধব চিংড়ি চাষমৎস্য ও মৎস্যজাত পণ্য রপ্তানি বৃদ্ধি ইত্যাদি।

অর্থমন্ত্রী বলেন, মৎস্য খাতে যে উন্নয়ন সম্ভব হচ্ছে গবাদি পশুপাখির ক্ষেত্রে তা মোটেও লক্ষ্যণীয় নয়। মুরগি ও হাঁস পালনে যথেষ্ট অগ্রগতি হলেও চতুষ্পদ প্রাণির মানোন্নয়ন এবং সরবরাহে কোনো অগ্রগতি নেই। এক্ষেত্রে কৃত্রিম প্রজনন ছাড়া কার্যকরী কোনো উন্নয়ন উদ্যোগ নেইএমনকি তাদের খাদ্য সরবরাহ ব্যবস্থাও বেশ দুর্বল। দেশের জনগণের পুষ্টি চাহিদা বিবেচনায় চতুষ্পদ প্রাণিসম্পদ উন্নয়নে সবিশেষ নজর দিতে হবে এবং বিভিন্ন পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, গবাদি পশু পাখির টিকা উৎপাদনচিকিৎসা সেবা প্রদানকৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে জাত উন্নয়ন এবং কৃষকদের প্রশিক্ষণ প্রদান কার্যক্রম জোরদার করা হবে। দেশের প্রাণিসম্পদ উন্নয়নের জন্য শিগগির একটি বিশেষ ঋণ কার্যক্রম শুরু করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর আওতায় … শতাংশ হারে গবাদি ক্রয় ও লালনের জন্য ঋণ দেওয়া হবে। এই খাতে ৩ বছর মেয়াদি একটি সমন্বিত কার্যক্রম গ্রহণ করে দেশকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করার উদ্যোগ নেওয়া হবে।

অর্থসূচক/শাফায়াত/এমই/