বার্গম্যানকে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত

ডেভিড বার্গম্যান

ডেভিড বার্গম্যানআন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালকে নিয়ে নিজের ব্লগে আপত্তিকর মন্তব্য করায় অভিযুক্ত সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানকে নিজের মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে তাকে তলব করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান নেতৃত্বাধীন ট্রাইব্যুনাল-২ এই আদেশ দেন।

আদেশে বলা হয়, আগামি ৬ মার্চ তাকে আদলতে নিজে উপস্থিত হয়ে অথবা আইনজীবীর মাধ্যমে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দেওয়া নির্দেশ দেয় আদালত।

যুদ্ধাপরাধ বিচার প্রক্রিয়ার সমালোচনা করে ট্রাইব্যুনালকে নিয়ে আপত্তিকর লেখালেখির জন্য  সমালোচিত হয়েছেন সাংবাদিক বার্গম্যান।

আবেদনকারী আবুল কালাম আজাদের পক্ষে তার আইনজীবী মিজান সাঈদ মঙ্গলবার ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের কাছে বার্গম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন।

এর আগে ২০১১ সালে ইংরেজি দৈনিক ‘নিউ এইজ’ এ মতামত কলামে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ গঠন বিষয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় ডেভিড বার্গম্যানকে কঠোর ভাষায় সতর্ক করেছিল ট্রাইব্যুনাল।

হাইকোর্টের আইনজীবী মিজান মঙ্গলবার জানান, ডেভিড বার্গম্যান তার ব্লগে লিখেছেন, যুদ্ধাপরাধ ও মানবতা বিরোধী অপরাধের জন্য দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালের দেওয়া তথ্যের কোনো ভিত্তি নেই। দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে গঠিত অভিযোগে ট্রাইব্যুনাল বলেছিল, মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশে ৩০ লাখ মানুষ শহীদ হয়, দুই লাখ নারী ধর্ষিত হয় এবং প্রায় এক কোটি মানুষ দেশ ছাড়তে বাধ্য হয়। এসব তথ্য ভিত্তিহীন বলেও তার ব্লগে মন্তব্য করেন তিনি।

মিজান বলেন, ২০১১ সালের ১১ অক্টোবর প্রকাশ করা ওই লেখাটি এখনো তার ব্লগে পাওয়া যাচ্ছে। তিনি লেখাটিতে ট্রাইব্যুনালের দেওয়া তথ্যের বিরোধিতা করেছেন । তাই সাধারণ নাগরিক হিসেবে এ বিষয়টি জুডিশিয়াল নোটিশে এনে এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানিয়েছি আমরা।

যুদ্ধাপরাধের তথ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলা এ বিদেশি নাগরিকের সমালোচনা করে মিজান আরও বলেন, যুদ্ধাপরাধের দায়ে সাজাপ্রাপ্ত আসামী পলাতক আবুল কালাম আযাদ ওরফে বাচ্চু রাজাকারের রায় ঘোষণার পরও তার ব্লগে ওই রায় নিয়ে সমালোচনা করেন ডেভিড বার্গম্যান।

তার বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে ডেভিড বার্গম্যান জানান, আমি স্বাধীনচেতা মতামত প্রকাশ করেছি মাত্র। আমার ব্লগে ট্রাইব্যুনালের দেওয়া কিছু আদেশ নিয়ে সমালোচনামূলক মন্তব্য রয়েছে ঠিকই, তবে সেগুলো পরিমিত ও নিরপেক্ষ, যদিও কেউ কেউ এতে দ্বিমত পোষণ করতে পারে।

প্রসঙ্গত, ব্রিটিশ নাগরিক ডেভিড বার্গম্যান বর্তমানে ইংরেজি দৈনিক নিউ এইজের বিশেষ প্রতিনিধি।

২০১১ সালের ২ অক্টোবর ‘এ ক্রুসিয়াল পিরিয়ড ফর আইসিটি’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশের পর আদালত অবমাননার অভিযোগে প্রতিবেদক ডেভিড বার্গম্যান, নিউ এইজ সম্পাদক নুরুল কবির এবং প্রকাশক আ স ম শহীদুল্লাহ খানকে কারণ দর্শাতে বলে ট্রাইব্যুনাল।

শুনানি শেষে ২০১২ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি ডেভিড বার্গম্যানকে সর্বোচ্চ সতর্ক করে আদেশ দেয়া হয়।

সে সময় আদালত অবমাননা হয়েছে উল্লেখ করে ট্রাইব্যুনাল শুধুমাত্র সাংবাদিকতার ভাবমূর্তিকে বিবেচনায় এনে সংশ্লিষ্টদের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেন।

এমআর