স্ট্যান্ডার্ড গার্মেন্টসের ক্ষতি সরকারের ও জাতীয় ক্ষতি: মণ্টু ঘোষ

: ফাইল ছবি
পুড়ে যাওয়া ট্যান্ডার্ড কারখানা: ফাইল ছবি

standard_fireস্ট্যান্ডার্ড গার্মেন্টসে অগ্নিকাণ্ডের ক্ষতি শুধু কারখানা মালিকের ক্ষতি নয় এটা সরকারের ও জাতীয় ক্ষতি বলে জানালেন গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি মণ্টু ঘোষ। শুক্রবার ১২ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে গার্মেন্টস শিল্পের শ্রমিক সম্পদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আয়োজিত শ্রমিক সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

মণ্টু বলেন, রাত ১০ টা পর্যন্ত শ্রমিকরা কাজ করেছে। এরপর  কোনও একটি গোষ্ঠি উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে পরিকল্পিতভাবে কারখানায় আগুন দিয়েছে। আগুনে পুড়ে গেছে কোটি কোটি টাকার সম্পদ। বেকার হয়ে পড়েছে প্রায় ২০ হাজার শ্রমিক।

যারা কারখানায় আগুন দিয়েছে তাদের শনাক্ত করে বিচারের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি প্রদানের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন যদি এর বিচার করা না হয় তাহলে সব গার্মেন্টস একত্রিত হয়ে কঠিন আন্দোলন করবে।

এসময় তিনি বলেন গার্মেন্টস শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরির গেজেট এখনও প্রকাশ করেনি সরকার। এটি নিয়ে কোন স্বার্থে সরকার গড়িমসি করছে তা জানি না। তবে এর পরিণাম শুভ হবে না।

তিনি বলেন, অতীতেও বিভিন্ন কারখানায় এরকম ঘটনা ঘটেছে সেগুলোর তদন্ত কমিটি সঠিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেনি। এবারও সেরকম হতে পারে। তবে সরকারকে বলতে চাই যদি এর তদন্ত করে সঠিক বিচার করা না হয় তাহলে গার্মেন্টস শ্রমিক ও মালিকেরা রাস্তায় নেমে এসে আসবে। আর তখন এ আন্দোলন ঠেকানো যাবে না।

এ সময় গ্রেপ্তার হওয়া শ্রমিক নেতা জিয়াউল কবির খোকন, সানাউল্লাহ ও গিয়াস উদ্দিনের মুক্তি দাবি করেন তিনি।

সমিবেশে আরও বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রুহুল আমিন, সাদেকুর রহমান শামীম, কে. এম মিন্টু প্রমুখ।

জেইউ/