বাঘের মুখ থেকে ফেরা

0
38
royel

royelদুইদিন আগেই ক্ষুদে বার্তায় লিখেছিলেন একটি প্রিণ্টিং হাউজে নিরাপত্তা প্রহরি হিসেবে চাকরি পেয়েছেন। এর একদিন পর জানান, কাজে একঘেয়েমিতার কারণে চাকরিও ছেড়েছেন তিনি। তিনি জানান, চাকরি ভালো লাগছিল না তার।এরপর সিদ্ধান্ত নেন নিজেকে বাঁচিয়ে রাখবেন না। আর সেই পথ হিসেবে বেচে নেন চিড়িয়াখানার  বাঘের খাঁচাকে। তবে তাতেও ইচ্ছা পূরণ করতে পারলেন না তিনি। বাঘও যেন গ্রহণ করলো না তাকে।  বড় ধরনের কোনো আক্রমনই করেনি তাকে্।  বাঘ কিছু করার আগেই চিড়িয়াখানার কর্তৃপক্ষ উদ্ধার করে তাকে। খবর ডেইলি মেইলের।

নাম ইয়াং জিনহাই। বয়স ৩০ এর কোটায়। বাস করেন চিনের সিচুয়ান প্রদেশে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, চাকরি ছাড়ার পর তিনি সিদ্ধান্ত নেন নিজেকে তিনি রয়েল বেঙ্গলের কাছে সপে দিবেন। যেই চিন্তা সেই কাজ।তিনি খাঁচার ভিতর ঝাঁপিয়ে পড়েন। এসময় খাচায় ছিল একটি বাঘ ও একটি বাঘিনী। তাকে দেখে বাঘিনী পালালেও  পুরুষ বাঘ তাকে ছাড়েনি । তার ওপর ঠিকই আক্রমণ করে । এরপর পার্কের কর্তৃপক্ষ বাঘের হাত থেকে তাকে রক্ষা করে তাকে।

প্রত্যক্ষদর্শী ফেং লিন জানান, জিনহাই খাচার ভিতর লাফিয়ে পড়েন। আমি মনে করেছিলাম বাঘেরা তার ওপর আক্রমণ করবে। কিন্তু সেইভাবে তার ওপর আক্রমণ করেনি তারা বরং বাঘিনী পালিয়ে গেছে। তিনি বলেন, এমন লোমহর্ষক ঘটনা কখনও নিজের চোক্ষে দেখেনি।

কর্তৃপক্ষ জানান, তিনি আঘাত পেয়েছেন। তবে এই মুহুর্তে নিরাপদে আছেন তিনি।