ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশনে স্বস্তি ফেরেনি বিনিয়োগকারীদের

0
46
DSE-Dawn
উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে কমেছে সূচক

DSE-Dawnস্টক এক্সচেঞ্জে ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশনের (ব্যপস্থাপনা থেকে মালিকানা পৃথকীকরণ)যাত্রা আশা জাগাতে পারেনি বিনিয়োগকারীদের মধ্যে। ডিমিউচুয়ালাইজেশনের কয়েকদিন আগে শুরু হওয়া দর পতনের ধারা এখনও চলছে। মঙ্গলবার সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসেও সূচক কমেছে দুই স্টক এক্সচেঞ্জে।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশনের নির্বাচন হয়। এরপর পুঁজিবাজারে চার কার্যদিবস লেনদেন হয়েছে। ডিএসই এবং সিএসইতে চার কর্যদিবসেই কমেছে সূচক। মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের অবস্থান দাঁড়ায় ৪ হাজার ৬৭১ পয়েন্টে। নির্বাচনের দিন এই সূচক ছিল ৪,৭৬৩ পয়েন্ট। আর সিএসই সার্বিক সূচক ১৪,৭৬৭ থেকে কমে ১৪,৫২৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

বাজার বিশ্লেষকদের মতে, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের নতুন পরিচালনা পর্ষদের ওপর এখনও আস্থা আনতে পারেনি বিনিয়োগকারীরা। কারণ নতুন পর্ষদের কার্যক্রম ভালোভাবে শুরু হতে সময় লাগছে। সেকারণেই বিনিয়োগকারীরা পুঁজিবাজারে নতুনভাবে বিনিয়োগ করতে সাহস দেখাচ্ছেন না।

মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ডিএসইএক্স সূচক আগের দিনের তুলণায় কমেছে ১২ দশমিক ৫০ পয়েন্ট বা দশমিক ২৬ শতাংশ। এই সূচক অবস্থান করছে ৪ হাজার ৬৭১ পয়েন্টে। ডিএসইএস সূচক তিন দশমিক ৭৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৮ শতাংশ কমে অবস্থান করছে ৯৭৩ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক ছয় দশমিক ৩৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে এক হাজার ৬৫৫ পয়েন্টে। তবে আগের দিনের চেয়ে লেনদেন বেড়েছে ৪ কোটি টাকার। এই দিন লেনদেন হওয়া ৫৪ শতাংশ কোম্পানির শেয়ার দর কমেছে।

ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৮৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯২টির কমেছে ১৫৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৮টির।

টাকার পরিমাণে লেনদেনের শীর্ষে থাকা ডিএসইর দশ কোম্পানি হল-স্কয়ার ফার্মা, বিএসসিসিএল,সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড,যমুনা অয়েল,অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ,মেঘনা পেট্রোলিয়াম,এএফসি এগ্রো বায়টেক লিমিটেড,গ্রামীণফোন,ডেল্টা লাইফ এবং লংকাবাংলা।

অপরদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সিএসই সার্বিক সূচক ২১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৪ হাজার ৫২০ পয়েন্টে।এই দিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২১৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার।এর মধ্যে দর বেড়েছে ৬৬টির কমেছে ১১২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫টির।

এমআরবি/