বিদ্যুতের দাম বাড়ছে আবার

0
33

Bhola-plant-picবিদ্যুতের দাম বাড়ানোর বিষয়ে খুব শিগগিরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল আহমদে। মঙ্গলবার মন্ত্রী জানান আগামি এক মাসের মধ্যে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে সরকার।

মঙ্গলবার দুপুরে ডিপ্লোমা প্রকৌশলী সমিতির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময় এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন ‘বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রক্রিয়া চলছে। বিতরণ কোম্পানিগুলোর প্রস্তাব পর্যালোচনা করে মূল্য বাড়ানোর প্রস্তাব আনুষ্ঠানিকভাবে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) কাছে পাঠানো হবে। বিইআরসি শুনানি শেষে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।’

বিদ্যুৎ জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী জানান, আগামি এক মাসের মধ্যেই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য বর্তমানে গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের গড় দাম ৫ টাকা ৭৫ পয়সা। গ্রাহকের কাছে এই দামে বিদ্যুৎ বিক্রি করে আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে বলে দাবি করে আসছে ৫টি বিতরণ কোম্পানি।

এদিকে মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে আগামি মার্চ মাস থেকেই হয়তো ভর্তুকি বিবেচনায় নিয়ে ১০ থেকে ১২ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ করা হতে পারে।

ইতোমধ্যে নতুন করে দাম বাড়ানোর প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে সব বিতরণকারী কোম্পানিকে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে সূত্রটি জানায়।

বিতরণকারী কোম্পানিগুলো থেকে এর আগে জানানো হয়, তারা পাইকারিপর্যায়ে যে হারে বিদ্যুৎ কিনছে গ্রাহকপর্যায়ে বিক্রি করা হচ্ছে তার চেয়েও কম দামে। এতে পিডিবির মতো এসব বিতরণকারী কোম্পানির লোকসান বেড়ে চলেছে। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য হয় বিদ্যুতের গ্রাহকপর্যায়ে মূল্য বাড়াতে হবে, অথবা পাইকারিপর্যায়ে বিদ্যুতের দাম কমাতে হবে।

তবে পাইকারিপর্যায়ে বিদ্যুতের দাম কমালে পিডিবির লোকসান আরও বেড়ে যাবে। এ কারণে বিদ্যুতের খুচরা মূল্য বাড়িয়ে লোকসান সমন্বয় করতে হবে বলে কোম্পানিগুলোর তরফ খেকে বলা হয়।

প্রসঙ্গত সর্বশেষ ২০১২ সালের ১ সেপ্টেম্বর দেশে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছিলো। সেসময়  সময় দাম বাড়ানো হয় খুচরা ১৫ শতাংশ এবং পাইকারিতে প্রায় ১৭ শতাংশ।

এর আগে ২০১১ সালে ১ ফেব্রুয়ারি পাইকারিপর্যায়ে ১১ শতাংশ এবং খুচরাপর্যায়ে ৫ শতাংশ দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়। ওই বছরের ১ আগস্ট পাইকারিপর্যায়ে কার্যকর হয় ৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ। মাত্র তিন মাসের মাথায় ১ ডিসেম্বর খুচরাপর্যায়ে ১৩ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং পাইকারিপর্যায়ে ১৬ দশমিক ৭৯ শতাংশ দাম বাড়ানো হয়।

আর এর কাছাকাছি সময়ে ২০১০ সালের ১ মার্চ ৬ দশমিক ৭ শতাংশ দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়।

সূত্র জানিয়েছে,  সম্প্রতি বিদ্যুৎ ও জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের  অফিস করার সময়  প্রধানমন্ত্রী বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবে সায় দেন।